৩১ বছরের অপেক্ষা শেষ হলো আবাহনীর
৩১ বছরের অপেক্ষা শেষ হলো আবাহনীর

সংগৃহীত ছবি

৩১ বছরের অপেক্ষা শেষ হলো আবাহনীর

অনলাইন ডেস্ক

২০১৮ সালে ফেডারেশন কাপের ফাইনালের পর আবাহনী বসুন্ধরা কিংসকে আর কোনো প্রতিযোগিতায় হারাতে পারেনি। শনিবার ফেডারেশন কাপে আবাহনী দুর্দান্ত খেলে গত হারের ক্ষত পুষিয়ে নিয়েছে। এ জয়ে আবাহনী ৩১ বছর পর স্বাধীনতা কাপের শিরোপা পুনরুদ্ধার করল। সাম্প্রতিক সময়ে ঘরোয়া ফুটবলে বসুন্ধরা কিংসের একক আধিপত্যের ছেদ ঘটাল আকাশী-নীল শিবির।

তিন বছর পর আবাহনী ঘরোয়া ফুটবলের কোনো ট্রফি জিতল।

বসুন্ধরা কিংসের মিডফিল্ডের প্রাণ ব্রাজিলিয়ান জনাথন ফার্নান্দেজ সেমিফাইনালে মাঠ ছেড়েছিলেন আঘাত পেয়ে। ফাইনালে তিনি খেলতে পারেননি। মাঠে ছিলেন না ডিফেন্ডার তপু বর্মণ আর তারিক কাজী। প্রথম একাদশের বেশ কজনকে হারিয়ে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারেননি বসুন্ধরা কিংসের কোচ অস্কার ব্রুজোন। স্বাধীনতা কাপের ফাইনালে ৩-০ গোলের জয় তুলে নেয় আবাহনী লিমিটেড।  

ম্যাচের প্রথমার্ধ্ব ছিল গোল শূন্য। তবে দ্বিতীয়ার্ধ্বে তিন গোল করে জয় তুলে নেয় আবাহনী। ৫৪তম মিনিটে বসুন্ধরা কিংসের ডিফেন্সের ফাঁক গলে বল বাড়িয়ে দেন রাফায়েল। রাকিব বল নিয়ে ডি বক্সে ঢুকে যান। জিকো সামনে এগিয়ে আসেন বাধা দিতে। কিন্তু জিকোর ডান পাশ দিয়ে বল জালে জড়ান রাকিব। ৬১তম মিনিটে বসুন্ধরা কিংসের ডিফেন্ডার রিমনের গায়ে লেগে ডি বক্সের ভিতরে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন আবাহনীর কোস্টারিকার ফুটবলার ড্যানিয়েল কলিনড্রেস। রিমন ফাউল করেছেন কি না ঠিক বুঝা যায়নি। তবে রেফারি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন। বসুন্ধরার ফুটবলাররা মাঠে এই সিদ্ধান্তের কড়া প্রতিবাদ জানালেও রেফারি কর্ণপাত করেননি। পেনাল্টি থেকে গোল করেন ডরিয়েলটন। কিছুটা বিতর্ক থাকলেও এই পেনাল্টি নিয়ে কোনো প্রশ্ন তুলতে চাননি বসুন্ধরা কিংসের কোচ অস্কার ব্রুজোন। ৭১তম মিনিটে রাফায়েল অগাস্তোর কর্নার কিক থেকে বল পেয়ে ব্যাক হেড করেন আবাহনীর ইরানি ডিফেন্ডার সোলাইমানি। ছোটো ডি বক্সের একটু বাইরে থেকে ডান পায়ের জোরালো শটে বল জালে জড়ান ডরিয়েলটন। সবমিলিয়ে স্বাধীনতা কাপে চার গোল করলেন আবাহনীর এই ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার। কিছুদিন আগে বাংলাদেশে এসেছেন ডরিয়েলটন। এরই মধ্যে প্রথম শিরোপা হাতে তুলে নিলেন তিনি। ফাইনালে ম্যাচসেরার পুরস্কারও জিতেছেন।

তিন বছর আগে ২০১৮ সালে ফেডারেশন কাপের ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল বসুন্ধরা কিংস ও আবাহনী লিমিটেড। সেবার ৩-১ গোলে জয় পেয়েছিল আবাহনী। স্বাধীনতা কাপের ফাইনালে দুই দল মুখোমুখি হলে বসুন্ধরার সামনে প্রতিশোধের সুযোগ ছিল। তবে এবারেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল আবাহনী।

জয়ের পর উচ্ছ্বসিত আবাহনী কোচ মারিও লামোস বলেন, ‘এটা আমার প্রথম ট্রফি আবাহনীর হয়ে। আশা করছি সামনে আরও ভালো করবে দল। ’

পরাজয়ের কারণ হিসেবে বসুন্ধরা কিংসের কোচ বলছেন, ‘আমাদের দলের বেশ কজন গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার দলে ছিলেন না। এজন্য পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা যায়নি। ’ স্বাধীনতা কাপ জিততে না পারলেও সামনে দল ভালো করবে বলে আশা করেন বসুন্ধরা কিংসের এ স্প্যানিশ কোচ।
news24bd.tv/আলী