হত্যার এক বছর পর পুঁতে রাখা রোহিঙ্গা যুবকের মরদেহ উদ্ধার
হত্যার এক বছর পর পুঁতে রাখা রোহিঙ্গা যুবকের মরদেহ উদ্ধার

এক বছর পর মাটি খুঁড়ে তোলা হয়েছে নিহত আমীনের মরদেহ

হত্যার এক বছর পর পুঁতে রাখা রোহিঙ্গা যুবকের মরদেহ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

কক্সবাজারের উখিয়ায় এক রোহিঙ্গা যুবককে অপহরণের পর হত্যা করে লাশ গুমের উদ্দেশে ঘরের মেঝেতে পুঁতে রাখা হয়। হত্যার এক বছর পর সৈয়দ আমীন (৪০) নামে ওই রোহিঙ্গা যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে ৮ নং আমর্ড পুলিশ (এপিবিএন)।

শনিবার (১৮ ডিসেম্বর) বিকালে উখিয়ার ১৪ নম্বর রোহিঙ্গা শিবিরের প্রাক্তন মাঝি ইয়াকুবের পরিত্যক্ত ঘরের মাটির নিচে থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

আমর্ড পুলিশ ও স্থানীয়  সূত্রে জানা গেছে, পারিবারিক আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে সৈয়দ আমীনকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

পরে ৮০ হাজার টাকা দাবি করে। টাকা দিতে না পারায় সৈয়দ আমিনকে হত্যা করে রোহিঙ্গা দুষ্কৃতিকারীরা।  

এক বছর পর অপহরণের রহস্যের জট খুলতে গিয়ে তিন রোহিঙ্গা নাগরিককে আটক করে আমর্ড পুলিশ (এপিবিএন)। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা আমিনের লাশের সন্ধান দেয়।

শনিবার বিকেলে আটক রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের নিয়ে ৮ নং আমর্ড পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রবিউল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে মাটি খুঁড়ে আমিনের মরদেহ বের করে।

৮ নং আমর্ড পুলিশের অধিনায়ক মোহাম্মদ সিহাব কায়সার খান জানান, সৈয়দ আমিন নামে এক রোহিঙ্গাকে এক বছর আগে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি করে দুর্বৃত্তরা। মুক্তিপণ দিতে না পারায় তাকে হত্যা করা হয়। অপহরণের মামলার সূত্র ধরে আমরা অনেক দিন ধরে কাজ করে যাচ্ছিলাম। অবশেষে ক্যাম্পের মাঝিদের সহায়তা নিয়ে তিন রোহিঙ্গাকে আটক করে ইয়াকুবের ঘর থেকে মরদেহটি উদ্ধার করি।

আরও পড়ুন


নোয়াখালীতে জবি ছাত্রীর মৃত্যু: ট্রাক চালক গ্রেপ্তার

news24bd.tv এসএম