বিশ্ব বাংলাদেশকে চেনে বঙ্গবন্ধুর নামে :পর্যটন প্রতিমন্ত্রী
বিশ্ব বাংলাদেশকে চেনে বঙ্গবন্ধুর নামে :পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

বিশ্ব বাংলাদেশকে চেনে বঙ্গবন্ধুর নামে :পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

সারা পৃথিবী বাংলাদেশকে চিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে, বাংলাদেশের জন্মদাতা পিতার নামে। তাই আগামী এক বছরের জন্য "Mujib's Bangladesh" পর্যটন ব্র্যান্ডিং স্লোগান নির্বাচন স্বার্থক। এই ব্র্যান্ড নেইমের অনুমোদন দেওয়ায় আমরা প্রধানমন্ত্রীর নিকট কৃতজ্ঞ বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতিকে শৃংখল মুক্ত করেছেন, দিয়েছেন মুক্তি ও স্বাধীনতা।

সত্যিকার অর্থে বঙ্গবন্ধুই বাংলাদেশ।

আজ রাজধানীর আগারগাঁওয়ে পর্যটন ভবনে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে "Mujib's Bangladesh" বাংলাদেশ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ বিশ্বের সকল মুক্তিকামী মানুষের মুক্তির আলোকবর্তিকা। এই ভাষণের পর সমগ্র জাতি প্রতিষ্ঠিত সরকারের নির্দেশনা অমান্য করে স্বাধীনতার মহানায়ক বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনায় পরিচালিত হয়েছে। বিশ্বের ইতিহাসে এ দৃষ্টান্ত বিরল।  

প্রতিমন্ত্রী বলেন, পচাত্তরের পর স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি এদেশ থেকে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ ও চেতনাকে মুছে ফেলার চেষ্টা করেছে। বর্তমানে জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে আবার বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তিনি বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধুর কাঙ্খিত সোনার বাংলায় রূপান্তরের কাজ করছেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের সংবিধানে যে অধিকারের নিশ্চয়তা দিয়েছেন তা বাস্তবায়ন করছেন।  

আরও পড়ুন: যে কারণে বিয়ের আসরেই বরকে গণধোলাই!

মাহবুব আলী বলেন, বাঙালি জাতি যতবার ঐক্যবদ্ধ হয়েছে ততবার বিজয় ছিনিয়ে এনেছে। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ ভাবে বঙ্গবন্ধুর কাঙ্খিত উন্নত বাংলাদেশ গড়ার জন্য কাজ করবো, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে এই আমাদের প্রতিজ্ঞা।

মুখ্য আলোচকের বক্তব্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী বলেন, বাংগালীরা সব সময় অগ্রসর জনগোষ্ঠী। ইতিহাসের বিভিন্ন পর্যায়ে অনেকেই বাঙ্গালির জাগরণের চেষ্টা করেছেন। শুধু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানই সফল হয়েছেন এই জাতিকে জাগিয়ে তুলতে, স্বাধীনতা এনে দিতে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে শ্রেণী-ধর্ম নির্বিশেষে দেশের সকল মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোকাম্মেল হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচক হিসেবে আরও বক্তব্য রাখেন ইউনেস্কো নির্বাহী কমিটিতে বাংলাদেশের প্রতিনিধি তারিক সুজাত এবং বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ আহমেদ।

news24bd.tv/আলী

;