সৈয়দপুরে নৌকা প্রার্থী পেলেন ৯৩ ভোট
সৈয়দপুরে নৌকা প্রার্থী পেলেন ৯৩ ভোট

হাসিনা বেগম

সৈয়দপুরে নৌকা প্রার্থী পেলেন ৯৩ ভোট

অনলাইন ডেস্ক

নীলফামারীর সৈয়দপুরে খাতামধুপুর ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে চেয়ারম্যান প্রার্থী হাসিনা বেগম মাত্র ৯৩ ভোট পেয়েছেন। ওই ইউপির ৯টি কেন্দ্র মিলিয়ে তিনি এই ভোট পান। এতে তার জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে। এটি জেলায় নৌকা প্রতীক নিয়ে সর্বনিম্ন ভোটের রেকর্ড।

এই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থী মাসুদ রানা বাবু পাইলট।

রোববার (২৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নে  শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বিজিবি, পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেছেন।

এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যানপদে পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। ইউনিয়নে ১৭ হাজার ৪৯৬ ভোটের মধ্যে ১৫ হাজার ১২০ ভোট কাস্ট হয়। যার মধ্যে ৩৪২টি ভোট বাতিল হয়েছে। এতে নৌকার প্রার্থী শূন্য দশমিক ৬৩ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। গতকাল রোববার রাত সাড়ে ৮টায় ঘোষিত ফলাফল থেকে এ তথ্য জানা যায়।

ঘোষিত ফলাফল থেকে জানা গেছে, ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত বিদ্রোহী প্রার্থী মাসুদ রানা বাবু পাইলট মোটরসাইকেল প্রতীকে পেয়েছেন সাত হাজার ৪০৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. জুয়েল চৌধুরী (আনারস) পেয়েছেন ছয় হাজার ৯৭৮ ভোট। এ ছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মোহাম্মদ আবুল কাশেম আলী (হাতপাখা) ২২৬ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মাহফুজ রেজা (টেলিফোন) পেয়েছেন ৭৬ ভোট।

ভরাডুবির বিষয়ে খাতামধুপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমল হোসেন সরকার বলেন, যিনি প্রার্থী হয়েছেন, তিনিই বলতে পারবেন তার ভরাডুবির কারণ কী? তাকে কেন্দ্র থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে, তৃণমূলের সেখানে কোনও মতামত ছিল না। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ থেকে একমাত্র পাইলটকে প্রার্থিতা দেওয়ার জন্য সুপারিশ করা হয়েছিল।


আরও পড়ুন:

মেডিকেল কলেজে এই প্রথম অপ্রীতিকর প্রস্তাবের সম্মুখীন হলাম, ফেসবুকে ছাত্রী

দেশটাকে লুটেপুটে খাচ্ছে আমলারা: শিল্প প্রতিমন্ত্রী

মধ্যরাতে ছাত্রী হোস্টেলে চিতাবাঘ, আহত ১৫

তামিম-রিয়াদ-মাশরাফি একই দলে, সাকিবের দলে গেইল


তিনি আরও বলেন, আমার বাবা এই ইউনিয়নে ২৭ বছর চেয়ারম্যান ছিলেন। আমি নিজেও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলাম। গত দুই মেয়াদে উপজেলা পরিষদে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করছি। আমাদের পরিবার রাজনৈতিক পরিবার। সেখানে আমার ছোট ভাই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়াটাই স্বাভাবিক।

প্রার্থী হাসিনা বেগমের দাবি, দলীয় নেতাকর্মীরা দিনের বেলা লোক দেখানো নির্বাচন করে আমার পক্ষে, আর রাতের বেলা তারা বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করে। এ জন্য আমার ভরাডুবি হয়েছে।

news24bd.tv/ নাজিম

;