বিভিন্ন ব্যক্তি আর বস্তুকে স্পর্শ করার অনুভূতি গুলো কেন আলাদা
বিভিন্ন ব্যক্তি আর বস্তুকে স্পর্শ করার অনুভূতি গুলো কেন আলাদা

শান্তা আনোয়ার

বিভিন্ন ব্যক্তি আর বস্তুকে স্পর্শ করার অনুভূতি গুলো কেন আলাদা

শান্তা আনোয়ার

কীভাবে স্নায়ুতন্ত্র তাপমাত্রার পার্থক্য ধরে ফেলে। বিভিন্ন ব্যক্তি আর বস্তুকে স্পর্শ করার অনুভূতি গুলো কেন আলাদা এই রহস্যভেদ করার জন্য চিকিৎসা বিজ্ঞানে ২০২১ সালের নোবেল পেয়েছেন ডেভিড জুলিয়াস এবং আর্ডেম প্যাটাপৌসিয়ান
পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পেয়েছেন স্যুকুরো মানাবে, ক্লাউস হাসেলম্যান এবং জর্জো পারসি।

মামাবে দেখিয়েছেন, বাতাসে কার্বন ডাই অক্সাইডের বর্ধিত মাত্রা কীভাবে উষ্ণায়ন ঘটায়। হাসেলম্যান প্রমাণ করেছেন, মানুষের নিত্য ব্যবহারের ফলে নিত্রগত কার্বন ডাই অক্সাইডই পৃথিবীর তাপমাত্রা বেড়ে যাবার কারণ।

পারমাণবিক থেকে মহাজাগতিক স্তরে বস্তুর ভিতরে যে বিশৃঙ্খলা আর পরিবর্তন ঘটে তা সহজ করে বোঝার পথ আবিষ্কার করেছেন পারিসি।  
কেমিস্ট্রিতে নোবেল পেয়েছেন বেনিয়ামিন লিস্ট এবং ডেভিড ম্যাকমিলান। যৌগ অনু তৈরি করতে এসিমিট্রিক ক্যাটালাইসিস নামে এক বিক্রিয়া আবিষ্কার করেছেন তারা। এর মাধ্যমে অনুঘটক হিসেবে ধাতু বা উৎসেচক নয়, কার্বনের জৈব যৌগের সাহায্যে একই ধরণের অনু তৈরি করা যায়।
 
সাহিত্যে নোবেল পেয়েছেন আব্দুল রাজ্জাক গুরণা। তার লেখায় উঠে এসেছে ঔপনিবেশিকতার বিরুদ্ধে সংগ্রাম এবং উদ্বাস্তুর কণ্ঠস্বর। পুর্ব আফ্রিকার জাঞ্জিবার থেকে ষাটের দশকে বৃটেনে আসেন উদ্বাস্তু হয়ে রাজ্জাক। দেশ হারানোর বেদনা ও ফেলে আসা স্মৃতি সত্তাকে আশ্রয় করে তার চরিত্রেরা নিজেদের খুঁজে পায় সংস্কৃতি থেকে সংস্কৃতি, মহাদেশ থেকে মহাদেশের মাঝে এক শুণ্যস্থান এক অবলম্বনহীন অস্তিত্বে।
 
বাক্স্বাধীনতার পক্ষে আজীবন লড়াই চালিয়ে যাওয়া দুই সাংবাদিক মারিয়া রেসা এবং দিমিত্রি মুরাতভ পেলেন নোবেল শান্তি পুরষ্কার। তাদের নিরপেক্ষ সাংবাদিকতা ক্ষমতার অপব্যবহার আর দুর্নীতির বিরুদ্ধে তৎপর থেকেছে। মিথ্যাচারি ও যুদ্ধবাজদের মুখোশ খুলেছেন। রাষ্ট্রের স্বেচ্ছাচারিতা, স্বৈরতন্ত্র, হিংসা ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সরব থেকেছেন।

আরও পড়ুন:

এক বিলিয়ন ডলার আয় করেছে "স্পাইডারম্যান: নো ওয়ে হোম"

কানে পুরস্কার জিতলো দেশের সিনেমা 'বাতিক বাবু'

আবার ব্যালটে লেখা ‘খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই’

 অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন ডেভিড কার্ড, জোশুয়া ডি অ্যাংগ্রিস্ট ও গুইডো ডব্লিউ ইমবেনস। ডেভিড কার্ড শ্রম অর্থনীতিতে অবদানের জন্য এবং অ্যাংগ্রিস্ট ও ইমবেন্স কার্যকারণ সম্পর্ক নিয়ে গবেষণার জন্য এই পুরস্কার পেয়েছেন। এই তিন অর্থনীতিবিদ শ্রমবাজার এবং প্রাকৃতিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা থেকে কী ধরনের কার্যকারণ সম্পর্ক নিরূপণ করা যায়, সে বিষয়ক নতুন অন্তর্দৃষ্টির সন্ধান দিয়েছেন।

লেখাটি শান্তা আনোয়ার-এর ফেসবুক থেকে নেওয়া।  (সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়। )

news24bd.tv/এমি-জান্নাত

;