কুমারখালীতে প্রধান শিক্ষকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার
কুমারখালীতে প্রধান শিক্ষকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

শিক্ষক রেজাউল ইসলাম

কুমারখালীতে প্রধান শিক্ষকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

জাহিদুজ্জামান, কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে রেজাউল ইসলাম (৫৬) নামের এক প্রধান শিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোরে যদুবয়রা ইউনিয়নের কেশবপুর গ্রামের নিজ বাড়ির লোহার গ্রিল থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে স্বজনরা পুলিশকে খবর দেয়।  

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, পুলিশ লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন প্রস্তুত করে পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফনের জন্য লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে। দুপুরে মরদেহ দাফন করা হয়েছে।

রেজাউল ইসলাম যদুবয়রা ইউনিয়নের ১০০ নং কেশবপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বাগুলাট ইউনিয়নের শালঘরমধুয়া গ্রামের মৃত আনছার উদ্দিনের জৈষ্ঠ্য পুত্র।

রেজাউল ইসলাম ১৯৯০ সাল থেকে কেশবপুরের নিদেনতলায় শ্বশুর বাড়ীতেই থাকতেন। উপজেলার শালঘরমধুয়ায় তার নিজের বাড়ী। শ্বশুরবাড়িতে বসবাস করেই তিনি চাকরী করতেন। তার স্ত্রী শেফালী আক্তার চর আগ্রাকুন্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক। এই দম্পতির দুই ছেলে রয়েছে। স্ত্রী শেফালী আক্তার বলেন, নতুন বাড়ি ও বাজারে একটি মার্কেট নির্মাণ করতে গিয়ে প্রায় ২০ লক্ষ টাকা ধার-দেনা করেছিলেন। সম্প্রতি তাঁর ভাইয়েরা তাঁকে এক লক্ষ ৭০ হাজার টাকা দেন। তিনি টাকা নিয়ে রাতে বাড়িতে ফিরে আসেন এবং রাতে অন্যান্য দিনের মতই ঘুমিয়ে পড়েন।

এরপর হঠাৎ ভোর রাতে নিজের পাকাবাড়ির সামনের পাশের গ্রিলে রশির সাথে ঝুলতে দেখেন তাঁর স্ত্রী। এ সময় স্ত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে তাঁকে নিচে নামিয়ে ডাক্তারকে খবর দেওয়া হয়। স্থানীয় ডাক্তার এসে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।
এ বিষয়ে কেশবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মুনসুর আলী বলেন, 'গত বৃহস্পতিবার প্রধান শিক্ষক নিজেদের মধ্যে আড্ডার সময় ইয়ার্কির ছলে চিরবিদায়ের কথা বলছিলেন। কিন্তু সত্যিই চলে যাবেন তা ভাবতে পারিনি। তিনি আরো বলেন, আজ শোনা যাচ্ছে সে অনেক টাকা দেনা। হয়তো দেনার চাপে আত্মহত্যা করেছে। '

আরও পড়ুন


বসুন্ধরা পেপার মিলসের ১২ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদন

news24bd.tv এসএম