গভীর রাতে ঘরে ঢুকে সন্তানের গলায় ছুরি ধরে মাকে ‘গণধর্ষণ’
গভীর রাতে ঘরে ঢুকে সন্তানের গলায় ছুরি ধরে মাকে ‘গণধর্ষণ’

প্রতীকী ছবি

গভীর রাতে ঘরে ঢুকে সন্তানের গলায় ছুরি ধরে মাকে ‘গণধর্ষণ’

অনলাইন ডেস্ক

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার দত্তপাড়া এলাকায় স্বামী ও ৪ বছরের সন্তানকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন এক গৃহপরিচারিকা। গভীর রাতে বাড়ির মালিকের ছেলে তাদের দরজায় এসে দরজা খুলতে বলেন। দরজা খুলতেই অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ঘরে ঢোকেন সে-সহ পাঁচজন। ভয়ে গৃহপরিচারিকার স্বামী দৌড়ে পালিয়ে যায়।

পরে ৪ বছরের শিশুর গলায় ছুরি ধরে ওই নারীকে ধর্ষণ করে তারা।

স্থানীয় মামলা সূত্রে জানা যায়, গণধর্ষণের শিকার ওই নারীর বাড়ি ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলাতেই। তিনি শহরের বিভিন্ন বাসায় পরিচারিকার কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন।

ওই নারী জানান, বাসার মালিক একাদুলের ছেলে মো. জুবায়েদ হোসেন আকাশ (১৯) গত রোববার রাত দেড়টার দিকে দরজায় এসে ডাকেন।

জানতে চাইলে সে বলে কাজ আছে দরজা খুলেন। দরজা খুলতেই পাঁচজনের একটি দল ঘরে ঢুকে তাঁর স্বামীকে অস্ত্রের ভয় দেখালে তিনি দৌড়ে পালিয়ে যান। তখন জুবায়েদ তাঁকে টেনেহিঁচড়ে নিজের ঘরের একটি কক্ষে নিয়ে যান। এ সময় বাধা দিলে তাঁর শিশুসন্তানের গলায় ছুরি ধরে অস্ত্রধারীরা তাঁকে ধর্ষণ করে। পরদিন ওই নারী ঘটনায় বিচার চাইলেও পাড়া-প্রতিবেশীরা কেউ কর্ণপাত করেনি।

স্থানীয়ভাবে বিচার না পাওয়ায় মঙ্গলবার ঈশ্বরগঞ্জ থানায় পাঁচজনের নামে মামলা করেন তিনি। পরে পুলিশ অভিযুক্ত জুবায়েদকে গ্রেপ্তার করে। অন্য আসামিরা হলেন এলাকার ফজলুল হকের ছেলে আপন মিয়া (১৯), মৃত শাইজ উদ্দিন মণ্ডলের ছেলে জামাল মিয়া (৩২), আকবর আলীর ছেলে বাবু ওরফে হাড্ডি বাবু (৩৩) ও সোহেল মিয়া (৩০)।

আরও পড়ুন


হাতিয়ায় পাওয়া ৯ মণের শাপলাপাতা বিক্রি হল যত টাকায়

news24bd.tv এসএম