শেরপুরে আগুনে ১৮ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই, কোটি টাকার ক্ষতি
শেরপুরে আগুনে ১৮ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই, কোটি টাকার ক্ষতি

১৮টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই

শেরপুরে আগুনে ১৮ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই, কোটি টাকার ক্ষতি

জুবাইদুল ইসলাম, শেরপুর

শেরপুরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ১৮টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। রোববার (২ জানুয়ারি) ভোরে সকালে সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের কুসুমহাটি বাজারে ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় দেড় থেকে দুই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা দাবি করেছেন।

ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার ভোর ৬টার দিকে সদর উপজেলার কুসুমহাটি বাজারের একটি দোকান থেকে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে আগুনের সূত্রপাত ঘটে।

পরে মুহূর্তেই আগুন সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে শেরপুর ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে নেয়। তবে এর আগেই গোডাউন, কসমেটিকস ও মনোহারি দোকানসহ ১৮টি দোকান সম্পূর্ণভাবে ভস্মীভূত হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত কসমেটিকস ব্যবসায়ী সুজন মিয়া জানান, আমার তিনটি গোডাউনে কসমেটিকস, প্লাস্টিক ও সুতার আইটেম ছিল।

এ অগ্নিকাণ্ডে আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সব মালামাল পুড়ে গেছে। আগুন আমার সব শেষ করে দিল। আমার প্রায় ৩০ লক্ষ টাকার মতো ক্ষতি হয়েছে। ব্যবসা পরিচালনা করতে গিয়ে আমি ১৫ লক্ষ টাকা ঋণ করেছি। এখন কি করবো ভেবে পাচ্ছি না।

ধানচাল ব্যবসায়ী আবুল কালাম জানান, গতকাল আমার গুদামে প্রায় ১৪ লক্ষ টাকার চাল ঢুকেছে। আজ ভোরে আগুনের খবর পেয়ে বাজারে এসে দেখি দাও দাও করে আগুন জ্বলছে। আগুনে পুড়ে আমার সব শেষ।

আরেক চাল ব্যবসায়ী হযরত মিয়া বলেন, আগুন আমাকে নিঃস্ব করে দিল। লাখ লাখ টাকার চাল ছিল আমার দোকানে। এখন আমার পরিবার কিভাবে চলবে?

লছমনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাই জানান, এ আগুনে কুসুমহাটি বাজারের ১৮টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভস্মীভূত হয়েছে। এতে ছোট বড় ১৮ জন ব্যবসায়ী পথে বসে গেছেন। বাজারের দোকানগুলো খুব কাছাকাছি হওয়ায় দ্রুত সময়ে আগুন এক দোকান থেকে অন্য দোকানে ছড়িয়েছে।

শেরপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক জাবেদ হোসেন মুহাম্মদ তারেক জানান, আগুন লাগার খবরটি দেরিতে পাওয়ায় আমরা পৌঁছানোর আগেই দোকানপাটগুলো ভস্মীভূত হয়। খবর পেয়ে দ্রুতই ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়েছি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। এরপরও তদন্ত শেষে প্রকৃত ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণ করা যাবে।

আরও পড়ুন


চাঁপাইনবাবগঞ্জে গোপালভোগের বিকল্প জাত বারি ১৮ উদ্ভাবন

news24bd.tv এসএম