ভারতের সঙ্গে ট্রানজিট চালু করতে আরও ট্রায়াল প্রয়োজন: নৌ প্রতিমন্ত্রী
ভারতের সঙ্গে ট্রানজিট চালু করতে আরও ট্রায়াল প্রয়োজন: নৌ প্রতিমন্ত্রী

নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

ভারতের সঙ্গে ট্রানজিট চালু করতে আরও ট্রায়াল প্রয়োজন: নৌ প্রতিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ট্রানজিট চালু করতে আরও কয়েক দফা ট্রায়ালের প্রয়োজন রয়েছে বলে জানিয়েছেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। রোববার (২ জানুয়ারি) চট্টগ্রাম বন্দরের বহরে যুক্ত টাগবোট কাণ্ডারি-৬ ও বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

নৌ-প্রতিমন্ত্রী বলেন, ট্রানজিট চালু করতে আমরা একটা ট্রায়াল করেছি। এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

আমাদের আরও অভিজ্ঞতা অর্জনের বিষয় রয়েছে। সেজন্য আমরা ভারতের কর্তৃপক্ষকে বলেছি আমাদের আরও দুয়েকটা ট্রায়াল প্রয়োজন। সফল হলে পুরোপুরি চালু হবে।  

তিনি বলেন, এটি নিয়ে সচিবালয়ে আলোচনা হয়েছে, যেখানে বন্দর কর্তৃপক্ষসহ বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সেখানেও আমরা বলেছি, বাংলাদেশের স্বার্থটা আগে।

সরকারের অগ্রাধিকারভিত্তিক প্রকল্প চট্টগ্রাম বন্দরের বে-টার্মিনালের বিষয়ে নৌ-প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটি দ্রুত বাস্তবায়নে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন কাজ করছে। বন্দর কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে চূড়ান্ত করেছে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান। পরামর্শক প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব দিতে পারলে আমাদের কার্যক্রম শুরু হয়ে যাবে। কাজের একটি অংশ বাস্তবায়ন করবে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। বাকি অংশ পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) মডেলে বাস্তবায়ন হবে।

তিনি বলেন, বে-টার্মিনালে বিনিয়োগের জন্য জাতীয়-আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান যোগাযোগ করেছে। সিঙ্গাপুর, ফ্রান্স, তুরস্ক ও ডেনমার্ক যোগাযোগ করছে। আমরা যাচাই-বাছাই করছি তাদের প্রস্তাব। বন্দরের জন্য এবং দেশের জন্য যারা ভালো হবে তাদের কাজ দেবো। সব মিলিয়ে বলা যায়, আমাদের কার্যক্রম চলমান।

আরও পড়ুন:


বিশ্ব অর্থনীতি ভালো নয়, তবুও বাংলাদেশ ভালো করছে: অর্থমন্ত্রী

ঢাকাসহ দেশের যেসব এলাকায় বাড়বে শীত

নিষেধাজ্ঞা পুনর্বিবেচনা করতে যুক্তরাষ্ট্রকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চিঠি


এদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত টাগবোট, ওভার-ফ্লু ইয়ার্ড, সার্ভিস জেটি, সুইমিং পুল ও টেনিস কোর্ট-বাস্কেটবল গ্রাউন্ডসহ চট্টগ্রাম বন্দরের মোট পাঁচটি প্রকল্প উদ্বোধন করেন নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম. শাহজাহান, সদস্য (প্রশাসন ও পরিকল্পনা) মো. জাফর আলম, সচিব মো. ওমর ফারুকসহ নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয় এবং বন্দরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv/ নাজিম