৪০ বছরের বেশি বয়স্কদের থাইমাস গ্ল্যান্ড দুর্বল হতে থাকে
৪০ বছরের বেশি বয়স্কদের থাইমাস গ্ল্যান্ড দুর্বল হতে থাকে

শান্তা আনোয়ার

৪০ বছরের বেশি বয়স্কদের থাইমাস গ্ল্যান্ড দুর্বল হতে থাকে

শান্তা আনোয়ার

অনেকেই বলে শিশুদের কেন করোনা হয় না অথবা শিশুরা করোনাভাইরাসে খুব কম আক্রান্ত হয় কেন কিংবা আক্রান্ত হলেও তীব্রতা কম। এর কারণ হিসেবে বলা যায়, শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে প্রচন্ড আর তাদের রোগ প্রতিরোধক্ষমতার বিশেষ একটি বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা তাদের রক্ষা করে।

শিশুদের থাইমাস গ্ল্যান্ডগুলো খুব সক্রিয় থাকে। এই গ্ল্যান্ডগুলোই হলো টি-সেল উৎপাদনের উৎস।

টি-সেল হলো রক্তের একধরনের শ্বেতকণিকা, যা দেহের রোগ প্রতিরোধক্ষমতার অংশ। টি-সেল দেহের বোন-ম্যারো থেকে উৎপন্ন হয়। যেহেতু শিশুরা দ্রুত টি-সেল উৎপাদন করতে পারে, তাই ভাইরাস শিশুদের টি-সেল ধ্বংসের আগেই শিশুদের দ্রুতগতিতে উৎপন্ন টি-সেল ভাইরাস ধ্বংস করতে পারে।

সৌদি আরবে অর্থপাচার মামলায় অভিযুক্ত ৬ জনকে ৩১ বছরের কারাদণ্ড

দক্ষিণ আফ্রিকার পার্লামেন্ট ভবনে আগুনের ঘটনায় একজন গ্রেপ্তার 

তবে কোনো শিশু খুব দুর্বল বা অন্য রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকলে হয়তো করোনাভাইরাসের শিকার হতে পারে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই শিশুদের করোনার আক্রমণ বেশ দুর্বল।

বয়স বাড়লে, বিশেষভাবে ৪০ বছরের বেশি বয়স্কদের থাইমাস গ্ল্যান্ড দুর্বল হতে থাকে। তাই বয়স্কদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কম এজন্য আমাদের উচিৎ বয়স্কদের প্রতিরোধশক্তি বাড়ানোর দিকে বেশি নজর দেয়া।  
মাস্ক পরুন, সুস্থ থাকুন৷

(সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়। )

news24bd.tv/এমি-জান্নাত