শেষ পর্যন্ত প্রমাণ হলো তারা নিরপরাধ
শেষ পর্যন্ত প্রমাণ হলো তারা নিরপরাধ

শান্তা আনোয়ার

শেষ পর্যন্ত প্রমাণ হলো তারা নিরপরাধ

শান্তা আনোয়ার

১৯৮৯ সালে একজন শেতাঙ্গ নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয় পাঁচজন কৃষ্ণাঙ্গ আমেরিকানের নামে। বলাই বাহুল্য ওই পাঁচজন কৃষ্ণাঙ্গ ছিলেন নিরপরাধ। সেই সময়ে আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চারটি খরবের কাগজে বিশাল বিজ্ঞাপন ছাপিয়ে এই পাঁচজন কৃষ্ণাঙ্গের শাস্তি দাবী করেছিলো।

বিজ্ঞাপনে লেখা ছিলো, "আমি এই খুনিদের ঘৃণা করতে চাই এবং চিরদিন করবো।

আমি ওদের বুঝতে চাই না, ওদের শাস্তি দিতে চাই। আমি ওদের রাগ বুঝতে চাই না, আমাদের রাগ ওদের বুঝাতে চাই। আমি চাই ওরা ভয় পাক। এই বিজ্ঞাপন ছাপাতে ট্রাম্পের খরচ হয় ৮৫ হাজার ডলার।

মামলা চলতে থাকে আর ওই পাঁচজন জেলে পঁচতে থাকে। এর মধ্যে আসল ধর্ষক ধরা পড়ে। ওই পাঁচজন নিরপরাধ ছাড়া পায়।  
২০১৩ সালে এই ঘটনায় ট্রাম্পের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয়েছিলো যে কেন তিনি নিরপরাধ মানুষের শাস্তি দাবী করেছিলেন, তারা কৃষ্ণাঙ্গ বলে? ট্রাম্প নির্লজ্জের মতো উত্তর দেয়, "ওরা কিছু একটা অবশ্যই করেছিলো। "

তার মানে যেহেতু তারা কৃষ্ণাঙ্গ তাই তারা অবশ্যই অপরাধী। এইরকম উন্মাদ একজন রেইসিস্টকে আমেরিকার জনগন ভোট দিয়ে প্রেসিডেন্ট বানিয়েছিলো। ভাবতেই অবাক লাগে।

আরও পড়ুন


৫ জানুয়ারির নির্বাচন: সারাদেশে প্রতিবাদী মানববন্ধন করবে বিএনপি

news24bd.tv এসএম

;