বিএনপির কৌশলটা দারুণ!
বিএনপির কৌশলটা দারুণ!

আরেফিন শাকিল, সাংবাদিক

বিএনপির কৌশলটা দারুণ!

আরেফিন শাকিল

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির নেতা হিসাবে চিন্তা করলেই অগ্রভাগে তৈমুর আলম খন্দকারের নাম আসে। মূলত ২০১১ সালের নাসিক নির্বাচনে তিনি 'আলোয়' আসেন। পরবর্তীতে, দলের সিদ্ধান্তে ভোট থেকে সরে গিয়ে তিনি দেশবাসীর কাছে   পক্ষান্তরে নায়ক বনে যান। এরপর ক্ষমতাসীন দল বিরোধী আন্দোলনে অংশগ্রহণ, জেল-হামলায় বিএনপির রাজনীতিতে তাঁর অবস্হান আরও মজবুত হয়।

যদিও তিনি নারায়ণগঞ্জের মানুষের কাছে আগে থেকেই মেহনতি মানুষের নেতা।

বিএনপির ৬ষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলে তৈমুর আলম খন্দকার আইন সম্পাদক থেকে পদন্নোতি নিয়ে বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য নির্বাচিত হোন। বলা বাহুল্য,  বিএনপিতে অভ্যন্তরে কানাঘুষা আছে, 'যারা অচল তারা পান উপদেষ্টার পদ'। সেই কাউন্সিলে দলে এক নেতার এক পদ কার্যকর করার বিধান সংযোজন হয়। এরপর নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কমিটি থেকে বাদ পড়েন তৈমুর। নাখোশ হোন তিনি। প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন শক্তভাবে। সম্ভবত পদত্যাগের হুমকি দিয়েছিলেন।

২০২০ সালের ডিসেম্বরের ২৯ তারিখ এক চিঠিতে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির মেয়াদর্ত্তীন কমিটি ভেঙে দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি করা হয়। যেখানে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারকে আহ্বায়ক এবং মামুন মাহমুদকে যুগ্ম আহ্বায়ক করে ৪১ সদস্যবিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছিলো। এরপর তৈমুর আলম খন্দকারসহ এমন একাধিক পদে থাকা নেতাদের যে কোন একটি পদ ছেড়ে দেয়ার জন্য বিএনপি থেকে বলা হয়।

কিন্তু তৈমুর আলম খন্দকার তাতে কর্নপাত করেননি। কারণটা পরিস্কার, কেন্দ্রীয় পদ জাতীয় রাজনীতিতে পরিচিত করে,গুরুত্ব বাড়ায়, টকশো'তে ডাকে। আর জেলার পদ এলাকায় আধিপত্য বাড়ায়। অবশেষে, সুযোগ বুঝে কোঁপ মারলো বিএনপি। কেন্দ্রীয় পদ থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন তৈমুর তবে বহাল আছেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক পদে। এতে বিএনপির দুইটা লাভ, ভোট নিয়ে তাদের অবস্হানে অনড় থাকা, বর্হিবিশ্বের কাছে নিজেদেরকে পরিস্কার রাখা। আবার, দলে এক নেতার এক পদ কার্যকর করা।

আরও পড়ুন:

কলোম্বিয়ায় সংঘর্ষে অন্তত ২৩ জন নিহত

কাঠমুন্ডুতে এ সপ্তাহের শুরুতেই অনুষ্ঠিত হলো কমিক এবং এনিমে উৎসব

বেচারা তৈমুর আলম আফসোস করতেই পারেন। সব সময়ে তাঁকেই কেন দাবার গুটি করা হয়! 
ভোটে দাঁড়ানোর আগে জনাব, তৈমুরের পর্যবেক্ষণ থাকা উচিত ছিলো বরিশাল, খুলনা, রাজশাহী, সিলেটে কোন ফরম্যাটে বিএনপি কমিটি দিয়েছে!

নির্বাচনের জন্য শুভ কামনা জনাব, তৈমুর।
এবার জিতে এসে, জবাব দিন!

(সোশ্যাল মিডিয়া বিভাগের লেখার আইনগত ও অন্যান্য দায় লেখকের নিজস্ব। এই বিভাগের কোনো লেখা সম্পাদকীয় নীতির প্রতিফলন নয়। )

news24bd.tv/এমি-জান্নাত 

 

;