ভোটে ঝরল আরও ১১ প্রাণ
ভোটে ঝরল আরও ১১ প্রাণ

ইসি বলছে দায় প্রার্থী ও সমর্থকদের

ভোটে ঝরল আরও ১১ প্রাণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। এই দফায়ও অনিয়ম-সহিংসতা ও মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। এ পর্যন্ত  সংঘাত-গোলাগুলিতে ১১ নিহত হয়েছেন। ভোট বর্জন, জাল ভোট, কেন্দ্র দখল, ব্যালট ছিনতাই ও খুনোখুনির মধ্য দিয়ে গতকাল(৫ জানুয়ারী) এ ধাপে ৭০৭ ইউপিতে ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে।

ফলাফল ঘোষণার পরও বিভিন্ন জেলায় সহিংসতা ঘটেছে। বুধবার ভোটের দিন বগুড়ায় পাঁচজন, চাঁদপুরে দুজন, গাইবান্ধা, চট্টগ্রাম, মানিকগঞ্জ ও ঝিনাইদহে একজন করে মারা গেছেন। ঝিনাইদহে যিনি মারা গেছেন, তিনি কয়েক দিন আগে সংঘর্ষের এক ঘটনায় আহত হয়েছিলেন। সব মিলিয়ে চলমান ইউপি নির্বাচনের সংঘাতে এ পর্যন্ত  সারাদেশে ১০৭ জনের প্রাণহানি ঘটল।

এ ছাড়া রাজশাহী, লালমনিরহাট, চট্টগ্রাম, ভোলা, ফেনী, মানিকগঞ্জসহ বেশ কয়েকটি জেলায় নির্বাচনী অনিয়ম, ককটেল বিস্ফোরণ, গোলাগুলি, সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ঘটেছে। চট্টগ্রামে গণমাধ্যমের গাড়ি ভাঙচুর হয়েছে। সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলায় দুই রিটার্নিং কর্মকর্তাকে সিল মারা ব্যালট পেপারসহ আটক করেছে পুলিশ ও জেলা প্রশাসন।

পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন নিয়ে ইসি সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন,বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনা ছাড়া নির্বাচন ভালো হয়েছে। সামনে আরও ভালো ভোট হবে। ভোট দিতে গিয়ে মৃত্যু, এ দায় কার- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রার্থী ও সমর্থকরা দায় নেবেন।  

গতকাল রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে ভোট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

news24bd.tv/আলী