বিক্ষোভে এখনও উত্তাল কাজাখস্তান
বিক্ষোভে এখনও উত্তাল কাজাখস্তান

ফাইল ছবি

বিক্ষোভে এখনও উত্তাল কাজাখস্তান

অনলাইন ডেস্ক

বিক্ষোভ সহিংসতায় এখনও উত্তাল কাজাখস্তান। পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে রাশিয়ার সহায়তা চাইলেন প্রেসিডেন্ট কাসিম জোমার্ত তোকায়েভ।

কাজাখস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী জানিয়েছে, আলমাতি শহরে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার অভিযানে ১২ জনেরও বেশি সরকারবিরোধী ‘দাঙ্গাকারী’কে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশের মুখপাত্র জানিয়েছেন, বিক্ষোভকারীরা শহরটির একটি থানার নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা করলে তারা পদক্ষেপ নেয়।

এর আগে বিক্ষোভের সময় নিহত হয় নিরাপত্তা বাহিনীর আট সদস্য। তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে শুরু হয় এই বিক্ষোভ।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় খুব ভোরে টেলিভিশনে প্রচারিত ভাষণে কাজাক প্রেসিডেন্ট কাসিম জোমার্ত তোকায়েভ রাশিয়ার নেতৃত্বাধীন সিএসটিও জোটের কাছে সাহায্য চাওয়ার কথা জানান।
 
কাসিম জোমার্ত বলেন, সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলো বড় অবকাঠামো দখল করেছে,আমি আগেই বলেছি। বিশেষ করে, আন্তর্জাতিক বিমান সহ প্রায় পাঁচটি বিমান সহ আলমাটির বিমানবন্দর দখল করা হয়েছে। আলমাটিতে হামলা ও ভাঙচুর করা হয়েছে। আলমাটির নাগরিকরা কষ্ট পাচ্ছে।

রয়টার্সের ফুটেজে দেখা যায়, কাজাখস্তানের বৃহত্তম শহর আলমাটির রাস্তায় বিক্ষোভকারীরা ফাঁকা গুলি ছুঁড়ছে। এছাড়া রাষ্ট্রীয় ভবনে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আটজন নিরাপত্তা কর্মী নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। নূর-সুলতান, আলমাটি এবং পশ্চিমাঞ্চলীয় মাঙ্গিস্তাউ প্রদেশে  জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।  বন্ধ রাখা হয়েছে ইন্টারনেট।

আরও পড়ুন:

ভারতের প্রতিরক্ষাপ্রধানকে বহনকারী কপ্টার বিধ্বস্ত হওয়া পাইলটের ভুল

ভারতের বাস ও ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত ১৭

বুধবার চতুর্থ দিনে গড়ায় কাজাখদের বিক্ষোভ। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে শুরু হলেও সরকার বিরোধী আন্দোলনে রূপ নেয় তা। বিক্ষোভকারীদের দমনে মিছিলে গুলিও ছোঁড়ে নিরাপত্তা বাহিনী। তবে রাজপথ ছাড়তে নারাজ আন্দোলনকারীরা। প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ চায় তারা।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত