সূরা ফাতিহাকে ‘ফাতিহাতুল কুরআন’ বলা হয় কেন?
সূরা ফাতিহাকে ‘ফাতিহাতুল কুরআন’ বলা হয় কেন?

প্রতীকী ছবি

সূরা ফাতিহাকে ‘ফাতিহাতুল কুরআন’ বলা হয় কেন?

অনলাইন ডেস্ক

সূরা আল-ফাতেহা পবিত্র আল কোরআনের প্রথম সূরা। এই সূরার দ্বারা মহান আল্লাহর বিধি-বিধান, হুকুম-আহকাম, হালাল-হারামসহ যাবতীয় দিক-নির্দেশনার ভাণ্ডার কোরআন শুরু হয়েছে। আর এ কারণেই সূরাটির নামকরণ করা হয়েছে- সূরাতুল ফাতিহা। একই কারণে সূরাটি প্রথমে কোরআনের প্রথমে স্থান দেওয়া হয়েছে।

এই সূরা আয়াত সাতটি। মক্কায় অবতীর্ণ। ‘ফাতিহা’ শব্দের অর্থ শুরু, আরম্ভ, উদ্বোধন, উদঘাটন প্রভৃতি।

কুরআনুল কারিমের ১১৪টি সূরার মধ্যে প্রথম সূরাটি হলো সূরাতুল ফাতিহা। আর এ জন্য সূরা ফাতিহাকে ‘ফাতিহাতুল কুরআন’ বা কুরআনের শুরু বলে অভিহিত করা হয়।

এ সূরার আরেকটি নাম “আলহামদু শরীফ”। সূরায়ে ফাতেহার আরেকটি নাম হচ্ছে “উম্মুল কোরআন” বা কোরআনের জননী (মা)। পুরো কোরআন শরীফের সারবস্তু সূরায়ে ফাতিহায় নিহীত বা পুরো কোরআন শরীফ হলো সূরায়ে ফাতিহার ব্যাখ্যা। তাই এ সূরাকে কোরআনের মা বলা হয়েছে।  

এ সূরার আরেকটি নাম হলো “সাবউ মছানী”। অর্থাৎ এ সূরাটিতে রয়েছে অনুপম সাতটি বাণী বা আয়াত। মাছানি বলা হয় এ কারণে যে, সূরাটি একবার মক্কায় ও একবার মদীনায় অবতীর্ণ হয়েছে। অধিকতর বিশুদ্ধমতে, মক্কা শরীফেই এ সূরাটি অবতীর্ণ হয়।


আরও পড়ুন:


ইউপি নির্বাচন: সাভারে জামানত হারাচ্ছেন ২৭ চেয়ারম্যান প্রার্থী

সোহেল রানার শারীরিক অবস্থার উন্নতি

টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধান বিচারপতির শ্রদ্ধা

করোনায় আক্রান্ত মহেশ বাবুু 


আল্লামা ইবনে জরীর (রাঃ) হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) হতে বর্ণনা করেন, হযরত রাসূলে কারীম ছাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন, সূরা ফাতিহা অর্থাৎ আলহামদু শরীফ হচ্ছে, উম্মুল কোরান, ফাতিহাতুল কিতাব, সাবউমাছানি।  

এ সূরার আরেকটি নাম হচ্ছে “সূরায়ে কাঞ্জ” (ভান্ডার)। হযরত আলী (রাঃ) হতে ইসহাক ইবনে রাওয়াহা (রাঃ) বর্ণনা করেছেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এরশাদ করেন, এ সূরাটি আরশের নিম্নস্থিত ভান্ডার থেকে অবতীর্ণ হয়েছে।

news24bd.tv/ নাজিম

;