ঝিনাইদহে আপত্তিকর অবস্থায় টিকটক মডেলসহ গ্রেপ্তার ৩, অতঃপর...
ঝিনাইদহে আপত্তিকর অবস্থায় টিকটক মডেলসহ গ্রেপ্তার ৩, অতঃপর...

৩ টিকটক মডেল গ্রেপ্তার

ঝিনাইদহে আপত্তিকর অবস্থায় টিকটক মডেলসহ গ্রেপ্তার ৩, অতঃপর...

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে মাদক সেবনের সময় ৩ টিকটক মডেলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এসময় তাদের প্রত্যেককে ১ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, শহরের পবাহাটি গ্রামের তোফাজ্জেলের মেয়ে টিকটক মডেল সাদিয়া আনজুম তুলি, পাগলাকানাই বাকা ব্রিজ এলাকার রিটুলের ছেলে মোঃ সংগ্রাম (২২) ও গয়েশপুর গ্রামের আব্দুল মালেকের ছেলে মোঃ সিয়াম হোসেন (২০)।

জানা গেছে, শহরের গয়েশপুর মাস্টারপাড়া এলাকার একটি বাড়ি থেকে মদ্যপ অবস্থায় এবং ইয়াবা সেবনের সরঞ্জামাদীসহ আলোচিত টিকটক মডেল তুলিসহ তিন জনকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার রাতে সদর থানায় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাদের প্রত্যেককে এক বছর করে কারদণ্ড প্রদান করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মোহাম্মদ সোহেল রানা জানান, মাদক সেবনের সরঞ্জামাদীসহ তুলিসহ তিনজনকে আটক করা হয়। আজ শনিবার তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত বছর ৩ জুন রাতে ঝিনাইদহ শহরের মহিলা কলেজ পাড়ার একটি বাসা থেকে আপত্তিকর অবস্থায় টিকটক ও লাইকি মডেল তুলি ও আশিকুর রহমানকে আটক করে পুলিশ। পরে অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগে আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। কিন্তু এর কিছু দিন পর বের হয়ে আবারও তুলি মাদক সেবন ও তার টিকটক কর্যক্রম শুরু করে।

সেসময় সদর থানার উপ-পরিদর্শক ও বর্তমান বেতাই ক্যাম্পের ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম জানান, গত বছর যখন তুলিকে আটক করা হয়েছিল তখন পবহাটি, আরাপপুর, মহিলা কলেজ পাড়াসহ শহরের বিভিন্ন এলাকার কিছু তরুণ তরুণী এ ধরনের টিকটকের নামে অসামাজিক কার্যকলাপ, মাদক সেবন ও ব্যবসাসহ অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ছিল। আমাদের কাছেও নিয়মিত এ ধরনের অভিযোগ আসতে থাকে। এমনই অভিযোগে তুলি ও আশিককে আটক করেছিলাম। এরপর কিছুটা কমলেও অনেকেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে এ ধরনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছিল। তবে এসবের বিরুদ্ধে সব সময়ই অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তথ্য প্রমাণ পেলেই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

শহরের মডার্ন মোড় নতুন ব্রিজ এলাকার বাসিন্দারা জানান, বিকেল হলেই প্রতিদিন তুলি তার দলবল নিয়ে নতুন ব্রিজে হাজির হয়। সড়কের মাঝখানে গানের সুরে সুরে নাচ করতে থাকে তারা। আবার সেটি টিকটক ভিডিও তৈরি করে। তাদের এ কাজের কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায় না। কিছু বললেই গায়ে হাত তুলতে উদ্যত হয়। আর অশ্লীল গালি দেয় তারা।

আরও পড়ুন


জিম্বাবুয়ের সেই ঘটনায় একাদশে জায়গা হল না জাহানারার!

news24bd.tv এসএম

;