কলেজ ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ : অভিযুক্ত কারাগারে
কলেজ ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ : অভিযুক্ত কারাগারে

কলেজ ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ : অভিযুক্ত কারাগারে

লক্ষীপুর প্রতিনিধি :

লক্ষীপুরে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তুলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক বছর যাবত কলেজ ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত মো. তারেক হোসেন (২৬) কে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত তারেক সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের (দারোগার বাড়ী) নুরুল আমিনের ছেলে। অপর অভিযুক্ত রাসেল মাহমুদ শেরপুর জেলার বাসিন্দা।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন লক্ষীপুর  মডেল থানার ওসি জসিম উদ্দীন।  

এজাহার ও থানা সূত্রে জানা গেছে, লক্ষীপুর  সরকারি কলেজ পড়ূয়া এক ছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় দ্বিতীয় অভিযুক্ত রাসেল মাহমুদের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে তাকে বিয়ের প্রলোভনে জোরপূর্বক একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়।  

এ সময় ভুক্তভোগী কলেজছাত্রী তারেককে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে বিয়ে করবে না বলে টালবাহানা করতে থাকে। বিষয়টি ভুক্তভোগী ওই কলেজছাত্রী পরিবারকে জানায়। পরে গত রবিবার (৯ জানুয়ারি) মোবাইল ফোনে ভিকটিমকে একই স্থানে নিয়ে গেলে পুলিশ অভিযুক্ত তারেক হোসেনকে হাতেনাতে আটক করে।  

পরে সোমবার (১০ জানুয়ারি)  ওই ছাত্রীর মায়ের করা ধর্ষণচেষ্টা মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখায় পুলিশ। ধর্ষণে সহযোগিতা করায় রাসেল মাহমুদ নামে তার এক বন্ধুকেও আসামী করা হয়। এর আগে গত ১ বছর যাবত ওই কলেজছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয় এই মামলায়।

আরও পড়ুন:

টাকা পরিশোধের জন্য চীনের কাছে সময় চেয়েছে শ্রীলঙ্কা

দীর্ঘ কয়েক মাসের চেষ্টায় সন্তানকে ফিরে পেল বাবা-মা

লক্ষীপুর  মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জসীম উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগী কলেজ ছাত্রীর মা বাদী হয়ে সোমবার ২ জনের নামে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত প্রধান আসামীকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।
news24bd.tv/আলী