এমএ আজিজ ছিলেন আদর্শিক রাজনীতিবিদ
এমএ আজিজ ছিলেন আদর্শিক রাজনীতিবিদ

এমএ আজিজ ছিলেন আদর্শিক রাজনীতিবিদ

অনলাইন ডেস্ক

ব্যক্তিস্বার্থ পরিহার করে নির্মোহ আদর্শিক রাজনীতিবিদরাই বাংলাদেশের সকল অর্জনের মূল কাণ্ডারি ছিলেন। মরহুম জননেতা এমএ আজিজ  ছিলেন এমনই একজন রাজনীতিক।

মঙ্গলবার বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর মরহুম এমএ আজিজের ৫১ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। চট্রগ্রামের  হালিশহরস্থ মরহুমের বাড়ি সংলগ্ন কবর প্রাঙ্গণে আজ এই আলোচনা সভার  আয়োজন করা হয়।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন,মাটি ও মানুষের ভাষা বুঝতে না পারলে কখনো আপাদমস্তক পরিপূর্ণ শুদ্ধাচারী রাজনীতিক হওয়া যায় না। ব্যক্তি স্বার্থ পরিহার করে নির্মোহ আদর্শিক রাজনীতিবিদরাই বাংলাদেশের সকল অর্জনের মূল কাণ্ডারি ছিলেন। মরহুম জননেতা এমএ আজিজ এমনই একজন রাজনীতিক ছিলেন।

মাহতাব উদ্দিন বলেন, প্রকৃত অর্থে রাজনীতি এখন নানা কারণে প্রশ্নবিদ্ধ। কারণ পরিশুদ্ধ রাজনীতিকরা এখন মাঠে নেই। অপ্রিয় হলেও সত্য তাঁরা কোণঠাসা হয়ে গেছেন। এটা হতাশার বিষয়। পরিশুদ্ধ রাজনীতিকরা যাতে মাঠে থাকতে পারেন, সেই আবহ তৈরি না হওয়া পর্যন্ত আমরা মাটি ও মানুষের ভাষা বুঝতে পারবো না।  

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ জাতীয় পরিষদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম উদ্দীন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।
 
আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘জননেতা এমএ আজিজ একজন দূরদর্শী রাজনীতিক হিসেবে বঙ্গবন্ধুর মতই বুঝতে পেরেছিলেন বাঙালির পরিপূর্ণ স্বাধীনতা ছাড়া উপনিবেশিক শৃঙ্খলমুক্ত হবে না এবং ভাগ্যের পরিবর্তনও হবে না। তিনি আরো বুঝতে পেরেছিলেন পাকিস্তানি শাসক গোষ্ঠী ৬ দফাকে মেনে নেবে না। কেননা ৬ দফা ছিল বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ এবং স্বাধীনতার প্রাক প্রস্তুতি ও প্রস্তাবনা। তাই তিনি ৬ দফাকে এক দফায় পরিণত করার প্রত্যয়ে সব ধরণের প্রস্তুতি ও নির্দেশনা প্রদান করেছেন।  

রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, এমএ আজিজকে যারা কাছ থেকে দেখেছেন তারা জানেন তিনি সবসময় অন্তরে স্বাধীনতার মন্ত্রকে ধারণ করতেন। বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে স্বাধীনতার পথ ও কৌশল নিয়ে একান্তে মতবিনিময় করতেন। তাই তিনি তাঁর কর্মী ও অনুসারীদের একদফার মন্ত্রে উজ্জীবিত করেছিলেন। তিনি বলেন,  এম এ আজিজের মতো প্রকৃত রাজনীতিকদের অভাব ও শূন্যতা রয়েছে। এই ঘাটতি পূরণ না হলে আমাদের পরিপূর্ণ মুক্তি অর্জন হবে না।  

আরও পড়ুন:

টাকা পরিশোধের জন্য চীনের কাছে সময় চেয়েছে শ্রীলঙ্কা

দীর্ঘ কয়েক মাসের চেষ্টায় সন্তানকে ফিরে পেল বাবা-মা

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনীর পরিচালনায়  সভায়  আরো বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য আলহাজ সফর আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ প্রমুখ। সভার আগে রন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এমএ আজিজের কবরে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন।

news24bd.tv/আলী