সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর কিশোরীকে ফেলা হলো ফ্লাইওভারের নীচে
সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর কিশোরীকে ফেলা হলো ফ্লাইওভারের নীচে

প্রতীকী ছবি

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর কিশোরীকে ফেলা হলো ফ্লাইওভারের নীচে

অনলাইন ডেস্ক

১৬ বছরের এক কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর তার গোপনাঙ্গে ঢুকিয়ে দেওয়া হলো ধারালো অস্ত্র। তারপর উড়ালসড়ক থেকে নীচে ফেলে দেওয়া হয়। সম্প্রতি এমন ঘটনা ঘটেছে ভারতের রাজস্থানের অলওয়ার জেলায়।

আনন্দবাজার জানায়, আশঙ্কাজনক অবস্থায় কিশোরীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশের ভাষ্য, ওই কিশোরীকে ভারতের তিলজারা উড়ালপুলের নীচে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। গণধর্ষণের পর তার গোপনাঙ্গে ধারালো অস্ত্র ঢুকিয়ে দেয় অভিযুক্তরা। তারপর তাকে ফ্লাইওভার থেকে নীচে ফেলে দেওয়া হয়।

পুলিশ আরও জানায়, মঙ্গলবার কিশোরীকে উদ্ধার করে অলওয়ারের একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে জয়পুরের জেএন লোক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে বুধবার আড়াই ঘণ্টা ধরে অস্ত্রোপচার করা হয়। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, নাবালিকার শরীরে অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন অঙ্গ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত। গোপনাঙ্গ থেকে ধারাল অস্ত্রও উদ্ধার করেছেন চিকিৎসকেরা।

কিশোরীর স্বাস্থ্যের প্রতি নজরদারি চলছে বলে জানিয়েছেন ওই হাসপাতালের চিকিৎসক অরবিন্দ শুক্ল।

কিন্তু এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলের ২৫ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে থাকা ৩০০-র বেশি সিসিটিভি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

অভিযুক্তদের শীঘ্রই গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছেন রাজস্থানের মহিলা এবং শিশুবিকাশ দপ্তরের মন্ত্রী মমতা ভূপেশ আশ্বাস।

নাবালিকার পরিবারকে ৬ লাখ টাকা দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছেন তিনি।

কিশোরীর পরিবারের লোকেরা দিনমজুরের কাজ করে।

news24bd.tv/  তৌহিদ

;