লালমোহনের পুকুরেও পাওয়া গেলো ২৫টি ‘সাকার ফিশ’
লালমোহনের পুকুরেও পাওয়া গেলো ২৫টি ‘সাকার ফিশ’

সাকার ফিশ

লালমোহনের পুকুরেও পাওয়া গেলো ২৫টি ‘সাকার ফিশ’

অনলাইন ডেস্ক

ভোলার লালমোহনে একটি পুকুরে ধরা পরেছে ২৫টি সাকার ফিশ।  শনিবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলার পশ্চিম চর উমেদ ইউনিয়নের সৈনিক বাজার সংলগ্ন এলাকার মালেক কন্ডাক্টরের বাড়ির মো. কামালের হোসেনের পুকুরে মাছগুলো ধরা পরে।

স্থানীয় লোকজন জানান, সকালে মালেক কন্ডাক্টরের ছেলে কামাল তার পুকুর সেচ দেন। পরে মাছ ধরার জন্য জাল ফেলেন তিনি।

এ সময় অন্য মাছের সঙ্গে তার জালে ‘সাকার ফিশ’ উঠে আসে। এই মাছ দেখতে ভিড় জমান স্থানীয়রা।

পুকুরে সাকার ফিশ প্রবেশের কারণ হিসেবে স্থানীয়রা ধারণা করছেন, এক বছর আগে প্রাকৃতিক দুর্যোগে জলোচ্ছ্বাস এবং জোয়ারে এলাকার অনেক পুকুর-ডোবা এবং খাল-বিল ডুবে যায়। তখন হয়তো পানির সঙ্গে এসব মাছ ভেসে এসেছে এবং তা বিভিন্ন পুকুরে ছড়িয়ে পড়েছে।  

আরও পড়ুন: 


বাবার বাড়ি যাওয়া হল না, লরি চাপায় পথেই প্রাণ গেল দুই নারীর

রোববার যেসব এলাকায় ব্যাংক বন্ধ থাকবে

সরকার উৎখাতই বিএনপি-জামায়াতের উদ্দেশ্য: ইনু

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে আজ থেকে নতুন নিয়মে গণপরিবহন চালু


এ বিষয়ে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এসএম আজহারুল ইসলাম জানান, এটি বিরল প্রজাতির মাছ নয়। এগুলো মাঝে মধ্যেই দেখা যায়। অ্যাকুরিয়ামে এ ধরনের মাছ থাকে। এরা সর্বোচ্চ এক থেকে দেড় কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। তবে এগুলো চাষ, উৎপাদন বা বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এসব মাছে অন্য প্রজাতির মাছের বংশবিস্তারে বাধা সৃষ্টি করে। এসব মাছ না খাওয়াই ভালো।  

তিনি বলেন, প্রাকৃতিকভাবে এই মাছ পুকুরে আসতে পারে। উন্মুক্ত জলাশয়ে বা চাষের পুকুরে এই রাক্ষুসে ‘সাকার ফিশ’ থাকলে দেশীয় প্রজাতির মাছ হুমকির মুখে পড়বে।

news24bd.tv/ নাজিম