‘গুনে-মানে নতুন পথ দেখাবে বসুন্ধরা বিটুমিন ’  
‘গুনে-মানে নতুন পথ দেখাবে বসুন্ধরা বিটুমিন ’
 

ফাইল ছবি

‘গুনে-মানে নতুন পথ দেখাবে বসুন্ধরা বিটুমিন ’  

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, নির্মাণ কাজে বিটুমিন গুরুত্বপূর্ণ। এতদিন বিদেশ থেকে আসা বিটুমিনের উপর এদেশের সড়ক নির্মাণ কাজ নির্ভর করতো। এসব বিটুমিনের মান ভালো না হওয়ায় অনেক সময় নির্মাণ কাজ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বসুন্ধরা শিল্প গোষ্ঠী দেশের কল্যাণে ভূমিকা রাখছে।

ইতিমধ্যে তারা বিটুমিন উৎপাদন করেছে। ইতিমধ্যে সড়ক বিভাগ এ বিটুমিনকে ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে ও নির্মাণ কাজে ব্যবহার করছে। আশা করছি বসুন্ধরা বিটুমিন গুনে-মানে নতুন পথ দেখাবে।
 
আজ রবিবার সন্ধ্যায় খুলনার একটি অভিজাত হোটেলে বসুন্ধরা গ্রুপের অন্যতম প্রতিষ্ঠান ‘বসুন্ধরা বিটুমিন ইঞ্জিনিয়ার মিট টেকনিক্যাল সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সড়ক ও জনপথ বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী সৈয়দ আসলাম আলী বসুন্ধরা বিটুমিনের সাফল্য কামনা করেন। তিনি বলেন, আমরা খুব আনন্দিত। বিটুমনের জন্য আমাদের সব সময় বিদেশের উপর নির্ভর করতে হতো।

আবার এগুলোর মান ভাল না হওয়ায় নির্মাণ কাজগুলোর মান নষ্ট হয়ে যায়। দেশের বেসরকারি খাতে প্রথম প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা বিটুমিন। গুন ও মান অক্ষুন্ন রেখে প্রতিষ্ঠানটি দেশের সেবায় এগিয়ে আসবে বলে আমরা প্রত্যাশা করছি।

মোজাহার এন্টারপ্রাইজের প্রাইভেট লিমিটেডের সত্ত্বাধিকারী কাজী মোজাহারুল হক বসুন্ধরা বিটুমিনকে স্বপ্ন পাওয়া ধন বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, অন্য পণ্যের মান খারাপ হলে ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কিন্তু বিটুমিনের মান খারাপ হলে জাতি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। জনগণের অর্থ নাশ হবে। সরকারি বিটুমিন আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান দেশের চাহিদার ২০ শতাংশও মেটাতে পারেনা।

এ ক্ষেত্রে বসুন্ধরা বিটুমিট বিশেষ চমক। স্বপ্নে পাওয়া ধনের মতো। আমরা ৩০টি জেলায় নির্মাণ কাজ করছি। ইতিমধ্যে এই বিটুমিন ব্যবহার করছি। আশাকরি বসুন্ধরা গ্রুপ দেশের স্বার্থে এই পণ্যে মান বজায় রেখে তাদের উৎপাদন অব্যাহত রাখবে।

অনুষ্ঠানে খুলনা চেম্বারের সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বুলু, বসুন্ধরা বিটুমিনের পরামর্শক ও আইইউটির সহকারী অধ্যাপক ড. নাজমুস সাকিব, বসুন্ধরা বিটুমিনের এসিট্যাণ্ট জেনারেল ম্যানেজার  (সেলস) সুকান্ত কুমার সাহা প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে সড়ক ও জনপথ বিভাগ, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, খুলনা সিটি করপোরেশন, ঠিকাদার ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের শতাধক প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত  

;