শনাক্ত রোগীর ২০ শতাংশই ওমিক্রনে আক্রান্ত: বিএসএমএমইউ
শনাক্ত রোগীর ২০ শতাংশই ওমিক্রনে আক্রান্ত: বিএসএমএমইউ

শনাক্ত রোগীর ২০ শতাংশই ওমিক্রনে আক্রান্ত: বিএসএমএমইউ

রিশাদ হাসান

দেশে বর্তমানে করোনায় ২০ শতাংশই ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট আক্রান্ত বলে জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।

বিশ্ববিদ্যালয়টির জেনেটিক্স ও মলিকিউলার বায়োলজি বিভাগের গবেষণায় উঠে এসেছে এমন তথ্য।

দীর্ঘ ছয় মাসের গবেষণায় ৭৬৯টি জেনম সিকোয়েন্স করার কথা জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। তবে এই মুহূর্তে আক্রান্তদের কেউই হাসপাতালে ভর্তি নেই।

ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশ বিশ্বের ৬০তম দেশ। জার্মান সংস্থা জিএসএআইডির তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত দেশে ভ্যারিয়েন্টটির কবলে পড়া মাত্র ৫৫জনকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে। তবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণায় গেল ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত সংগৃহীত মোট ৯৬টি নমুনার জেনম সিকোয়েন্সিং করে মিলেছে ভিন্ন তথ্য।

ওই গবেষণায় ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের সন্ধান মিলেছে ২০ শতাংশ। গেল ছয় মাসের গবেষণার তথ্য বলছে, জুলাই মাসে ৯৮ শতাংশ ও ডিসেম্বর পর্যন্ত  ৯৯.৩১ শতাংশ আক্রান্তের শরীরে মিলেছে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। মোট জেনম সিকোয়েন্সিং করা হয়েছে ৭৬৯টি নমুনার।

তবে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার কারও শরীরে ওমিক্রনের সন্ধান পায়নি গবেষকরা। অনেকেরই ছিলো ডাবল ডোজ ভ্যাকসিন নেওয়া, মিলেছে তৃতীয় বারের মতো আক্রান্ত হওয়ার তথ্যও।  ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের স্পাইক প্রোটিনে পরিবর্তন থাকায় বিশ্বে প্রচলিত ভ্যাকসিন গুলো নেয়ার পরেও আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কা জানিয়েছ গবেষক দল।

বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা দলের উপদেষ্টা ও উপাচার্য বলছেন, কো-মরবিট রোগীদের ওমিক্রনে আক্রান্ত হওয়ার উচ্চ ঝুঁকি রয়েছে।

ওমিক্রনের সংক্রমণ শনাক্তে সারাদেশ থেকেই নমুনা সংগ্রহ করে জিনোম সিকোয়েন্সিং এর উদ্যোগ নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।  

আরও পড়ুন: 

একদিনেই শনাক্ত বাড়ল প্রায় দু’হাজার
news24bd.tv তৌহিদ

;