ধর্ষণের পরে হত্যা ও গুম, একজনকে ফাঁসির আদেশ
ধর্ষণের পরে হত্যা ও গুম, একজনকে ফাঁসির আদেশ

সংগৃহীত ছবি

ধর্ষণের পরে হত্যা ও গুম, একজনকে ফাঁসির আদেশ

অনলাইন ডেস্ক

এক নারীকে ধর্ষণের পরে হত্যা ও মরদেহ গুম করার অভিযোগে জসীম উদ্দীন বাপ্পি (৫০) নামে এক আসামিকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থানায় ঘটনাটি ঘটে। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক জামিউল হায়দার এ আদেশ দেন। এসময় তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৪ এর সরকারি কৌঁসুলি নিখিল কুমার নাথ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, রায় ঘোষণার সময় আসামি আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২৯ মার্চ সীতাকুণ্ড উপজেলার কুমিরা এলাকার কবির পাহাড়ে রান্নার জন্য কাঠ কাটতে যান শারমিন আক্তার নামের এক নারী। সেখানে আসামিরা তাকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর শারমিনকে আসামি বাপ্পি ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন। এর একদিন পর শারমিনের ক্ষতবিক্ষত মরদেহ পাওয়া যায়। সুরতহাল ও ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে শারমিনকে ধর্ষণ করে হত্যা করার প্রমাণ পাওয়া যায়। পরে দিন ৩০ মার্চ অজ্ঞাত আসামি করে সীতাকুণ্ড থানায় মামলা করা হয়।

আরও পড়ুন:

পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন রাইসি

রপ্তানি পণ্যের দাম বেড়েছে ইন্দোনেশিয়ায় 

পরবর্তীতে আসামি জসীম উদ্দীন বাপ্পিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তদন্ত শেষে পুলিশ আদালতে পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়।

চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৪ এর সরকারি কৌঁসুলি নিখিল কুমার নাথ সংবাদমাধ্যমকে জানান, ১৭ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য ও জেরা শেষে আসামি জসীম উদ্দীন বাপ্পির বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আদালত দোষী সাব্যস্ত করে ফাঁসির আদেশ দেন। একই সঙ্গে এক লাখ টাকা জরিমানারও আদেশ দেন আদালত। মামলায় আরও চার আসামি ছিলেন। তাদের মধ্যে ২ জন কারাগারে মারা যায়।

শরীফ ও আইয়ু্ব নামে আরও দুইজনকে আদালত খালাস দিয়েছেন।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত     

;