ব্রণের স্থায়ী সমাধানে যা করবেন
ব্রণের স্থায়ী সমাধানে যা করবেন

প্রতীকী ছবি

ব্রণের স্থায়ী সমাধানে যা করবেন

অনলাইন ডেস্ক

ব্রণ প্রচলিত একটি সমস্যা। আমাদের দেশেই শুধু নয়, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে কিশোর-কিশোরীদের ব্রণের সমস্যা দেখা যায়। ব্রণ মূলত বয়ঃসন্ধিকালীন একটি সমস্যা। তবে বিভিন্ন বয়সে নারী ও পুরুষদের ব্রণের সমস্যা দেখা যেতে পারে।

ব্রণের সমস্যায় চিন্তিত হওয়ার তেমন কোনো কারণ নেই। তবে বেশি হয়ে গেলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হতে হবে।

ব্রণ কেন হয়
ব্রণ হওয়ার অনেকগুলো কারণেরএর মধ্যে প্রধান হলো হরমোন ক্ষরণের তারতম্য বা অভাব, জীবাণুর সংক্রমণ, ত্বকের অযত্ন, অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা, তৈলাক্ত ও অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া, ঘুম না হওয়া, অতিরিক্ত ঘাম হওয়া ইত্যাদি। পরিষ্কার–পরিচ্ছন্ন ও সুনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন ব্রণ থেকে মুক্ত থাকার প্রধান শর্ত।

প্রেসক্রিপশন পয়েন্ট, বনানী শাখার চর্ম ও যৌনরোগ বিভাগের কনসালটেন্ট ডা. ফারিয়াল হক এলভিস ব্রণ নিয়ে বলেন, আমাদের দেশে না শুধু সারা বিশ্বে ব্রণ খুব কমন একটি নাম। ব্রণের মতো দেখতে এখন অনেক কিছু হচ্ছে। ব্রণ অনেক ধরনের আছে। যেমন হোয়াইটহেডস, ব্ল্যাকহেডস—এগুলো কিন্তু এক ধরনের ব্রণ। এমন অনেক ধরনের ব্রণ আছে।

ডা. ফারিয়াল হক এলভিস বলেন, বয়সটা অবশ্যই বয়ঃসন্ধিকাল। বয়ঃসন্ধিকালে যেটা হয়, শরীরে কিছু পরিবর্তন আসে। যেমন হরমোনের পরিবর্তন হবে। এ সময় সেক্স হরমোন বা টেস্টোস্টেরন আমাদের পুরুষদের শরীরে, মেয়েদের শরীরে থাকে অ্যান্ড্রোজেনিক হরমোন। টেস্টোস্টেরন হরমোনের কাজ হলো, আমাদের শরীরে কিছু গ্ল্যান্ড থাকে, যেটা তেল বের করে; এই অয়েল গ্ল্যান্ডগুলোকে স্টিমুলেট করে। বয়ঃসন্ধিকালে যেহেতু সেক্স হরমোন বেড়ে যায়, তখন তেলের পরিমাণ ত্বকে বেড়ে যায়। এই বয়সে সাধারণত আমরা উদাসীন থাকি।  

একটা-দুটো ব্রণ উঠতেই পারে। এটা মেনস্ট্রশনের আগে মেয়েদের হয়ে থাকে, হরমোনাল অ্যাকনি। স্ট্রেসের জন্য হয়ে থাকে। আমরা প্রচুর চা-কফি খাই। চা-কফি খেলে শরীরে স্ট্রেস হরমোনটা বেড়ে যায়। তখনও ব্রণ হতে পারে। একটা-দুটো ব্রণ হলে সেটার জন্য ম্যাসিভ কোনও ট্রিটমেন্ট দরকার হয় না। ভালো ক্লিনজার যদি আপনি ব্যবহার করেন স্কিন টাইপ অনুযায়ী, তাহলে কিন্তু যথেষ্ট। ক্লিনজিংয়ে ব্রণের ফিফটি পারসেন্ট ট্রিটমেন্ট হয়ে যায়। তার পরে বলব, যদি ডাক্তারের কাছে না যেতে চান, সে ক্ষেত্রে ডায়েটের একটা ভূমিকা আছে।

ঘরোয়া সমাধান 

শসা
শসায় আছে ভিটামিন এ, সি এবং ই। আর এই ভিটামিনগুলো ব্রণ দূর করতে বেশ কার্যকর। শসা মিহি করে  সামান্য পানিতে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করেতে হবে। পেস্টটি পুরো মুখে বিশেষ করে ব্রণের উপর লাগিয়ে অপেক্ষা করতে হবে। ত্বকে মিশ্রণটি শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

ডিমের সাদা অংশ
তিনটি ডিমের সাদা অংশ আলাদা করে ভালোভাবে ফেটে নিন, যেন ঘন ফোম তৈরি হয়। ত্বক ভালোভাবে পরিষ্কার করে ডিমের ফোম লাগিয়ে নিতে হবে। প্রথমবারের পর মিশ্রণ শুকিয়ে গেলে আবারও আরেক মিশ্রণ লাগিয়ে নিতে হবে। এভাবে চারটি ধাপে মিশ্রণ লাগাতে হবে। ২০ মিনিট অপেক্ষা করে শুকিয়ে যাওয়ার পর ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।

পেঁপে
পেঁপেভালোভাবে ব্লেন্ড করে পেঁপের পেস্ট তৈরি করুন। মাস্কটি ত্বকে মেখে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। ২০ মিনিট অপেক্ষার পর পুরোপুরি শুকিযে গেলে ত্বক ভালোভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে
news24bd.tv/আলী   

;