ছেঁড়া কাঁথা গায়ে দেওয়া বিধবা পেল বসুন্ধরার কম্বল
ছেঁড়া কাঁথা গায়ে দেওয়া বিধবা পেল বসুন্ধরার কম্বল

ছেঁড়া কাঁথা গায়ে দেওয়া বিধবা পেল বসুন্ধরার কম্বল

অনলাইন ডেস্ক

পলিথিন মোড়ানো খুপড়িঘরে থাকেন বিধবা মালেখা খাতুন (৬৫)। স্বামী মারা গেছেন ৫ বছর আগে। ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার রুপসী ইউনিয়নের বড়ইকান্দি গ্রামের এ বিধবার নেই কোনো ছেলে সন্তান। আয়-রোজগারের কেউ না থাকায় খেয়ে না খেয়ে চলে তার জীবন।

একটি ছেঁড়া কাঁথা তার সম্বল।

তাই বসুন্ধরা গ্রুপের কম্বল পেয়ে খুশিতে আত্মহারা। ‘আল্লাহ বসুন্ধরার মালিককে হায়াত দান করুক আমরা যেন আরো পাইতে পারি। এত সুন্দর কম্বলতো কেউ দেয় না। অহন থাইক্যা আরামে ঘুমাইবো। ’

বসুন্ধরা গ্রুপের কম্বল পেয়ে ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলার অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফুটেছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার রুপসী ইউনিয়নে ৫০টি ও বিকেলে ফুলপুর সরকারি মহিলা ডিগ্রি কলেজ মাঠে ২০০টি কম্বল বিতরণ করা হয়।

কালের কণ্ঠ শুভসংঘের আয়োজনে অসহায় দুস্থদের মাঝে এ কম্বল বিতরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন ফুলপুর উপজেলা শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শীতেষ চন্দ্র সরকার, ফুলপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউল করিম রাসেল, শুভসংঘের উপদেষ্টা ও কৃষিসম্প্রসারণ কর্মকর্তা কামরুল হাসান (কামু), ওসি আব্দুল্লাহ আলমামুন, ফুলপুর প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবীর মুকুল, সিনিয়র সহসভাপতি নূরুল আমিন, সহসভাপতি খলিলুর রহমান, শুভসংঘের উপদেষ্টা শিখা রানী সরকার বিউটি, মুক্তিযুদ্ধের গবেষক এ টি এম রবিউল করিম, সাংবাদিক আব্দুল মান্নান, শুভসংঘের সভাপতি জিয়াউর রহমান পান্না, সাধারণ সম্পাদক নিশীথ সরকার মিঠু, শুভসংঘের সদস্য কবি এস এম বিল্লাল, মতিউর রহমান বিএসসি, ফাতেমা আক্তার, আয়েশা খাতুন, শামীমা রায়হান, তাসনোভা নাসরিন নিশু, সাকিব মিয়া, আলমগীর ইসলাম, শীপন মীর, স্কাউট সদস্য ইকবাল, ইমরান, উদয়, লাদেন, হৃদয়, ইকবাল প্রমুখ।

এ সময় ইউএনও শীতেষ চন্দ্র সরকার বলেন, বসুন্ধরার গ্রুপের এটি মানবিক কাজ। গত বছর এ মাঠেই করোনাকালে ৩৫০ জন মানুষকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হয়। এবার কম্বল বিতরণ করা হয় শুভসংঘের পক্ষ থেকে। আমার কাছে খুব ভালো লাগল। এ রকম মানবিক কাজ দেখেই আমি শুভসংঘের সাথে জড়িত হলাম। আশা করি, ভবিষ্যতে শুভসংঘ আরো মানবিক কাজ করবে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউল করিম রাসেল বলেন, বসুন্ধরার মতো সবাই এগিয়ে আসলে দেশের জন্য অনেক ভালো। মানবিক এ কাজে আমি সব সময় পাশে থাকব। শুভসংঘের কাজ এর মধ্যে সারাদেশে ব্যাপক প্রশংসা হয়েছে।

অপরদিকে সকালে উপজেলার রুপসী ইউনিয়নের ঘোমগাঁও রোহানী মঞ্জিলে ৫০টি কম্বল বিতরণ করা হয়।

প্রধান অতিথি ছিলেন ওসি আব্দুল্লাহ আলমামুন।

তিনি বলেন, বসুন্ধরার জন্য আজ প্রত্যন্ত অঞ্চলের লোকজনও কম্বল পেল। আমার কাছে খুব ভালো লাগল অপনাদের মুখে হাসি দেখে। এমন মানবিক কাজ যাঁরা করেন তাদের জন্য দোয়া করবেন। ভবিষ্যতে যেন এমন বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠান আরো মানবিক কাজে বেশি আগ্রহ দেখায়।

হাজি সিরাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন কৃষিবিদ কামরুল হাসান কামু, সিনিয়র সাংবাদিক নূরুল আমিন, আব্দুল মান্নান, শুভসংঘের সভাপতি জিয়াউর রহমান পান্না, সাধারণ সম্পাদক নিশিথ সরকার মিঠু, উপজেলা মানবাধিকার কমিশনারের সভাপতি আব্দুল্লাহ প্রমুখ।

কম্বল নিতে আসা মানবিক এ মানুষ নিয়ে বসুন্ধরা চেয়ারম্যানের জন্য দোয়া করেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাংবাদিক মাওলানা আব্দুল মান্নান। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন কালের কণ্ঠের প্রতিনিধি মোস্তফা খান।

আরও পড়ুন


‘বসুন্ধরার মালিকে কম্বল পাডাইছে, ইশ্বর তার বালা করুক’

news24bd.tv তৌহিদ

;