৭৭ বছর পর নিখোঁজ বিমানের সন্ধান
৭৭ বছর পর নিখোঁজ বিমানের সন্ধান

সংগৃহীত ছবি

৭৭ বছর পর নিখোঁজ বিমানের সন্ধান

অনলাইন ডেস্ক

৭৭ বছর আগে অর্থাৎ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন ১৯৪৫ সালে ১৩ জন যাত্রী নিয়ে নিখোঁজ হয় সি-৪৬ নামের একটি পরিবহন বিমান। যেটি সে সময়ে দক্ষিণ চীনের কুমিং এলাকা থেকে যাত্রা শুরু করেছিল। কিন্তু যাত্রা শুরুর পর হঠাৎ করেই ঝড়ের কবলে পড়ে বিমানটি। এরপর থেকেই নিখোঁজ হয়ে যায় বিমানটি।

নিখোঁজ বিমানের সন্ধানে অনেক অনুসন্ধান চালানো হয়। কিন্তু বহু খোঁজাখুঁজির পরও যখন বিমানটির খোঁজ পাওয়া যায়নি, তখন সবাই আশা ছেড়ে দেন।  তবে দীর্ঘ ৭৭ বছর পর নিখোঁজ বিমানটি পাওয়া গেছে ভারতের মধ্যে পড়া হিমালয়ের নির্জন পাহাড়ে। খবর আল জাজিরার।  

জানা গেছে, বিমানটিতে থাকা এক অফিসারের সন্তানের চেষ্টায় নতুন করে শুরু হয় বিমানটির খোঁজ। বিমানটি অনুসন্ধানে নামেন ক্লায়টন কুহেলস নামের একজন দুঃসাহসী মানুষ।  তবে তার সঙ্গে এ অভিযানে যোগ দেওয়া তিনজন প্রাণও হারান।  

অনুসন্ধান মিশনের প্রধান যুক্তরাষ্ট্রের অভিযাত্রী ক্লায়টন কুহেলস বলেছেন, পরে এই বিমানটি নিখোঁজ হওয়া নিয়ে আর কোনো কথা শোনা যায়নি। এটি কেবল অদৃশ্য হয়ে গেছে। এই বিমানটির হতভাগ্য এক যাত্রীর সন্তানের অনুরোধের পর তারা এই অনুসন্ধান শুরু করেন।

স্থানীয় লিসু নৃগোষ্ঠীর একদল গাইড নিয়ে বরফশীতল নদীর হাঁটু ও গলা সমান পানি পেরিয়ে পর্বতের উচ্চতায় হিমায়িত তাপমাত্রায় তাদের ক্যাম্প করতে হয়েছিল। গত সেপ্টেম্বরে তুষার ঝড়ের সময় প্রাথমিক পর্যায়ে প্রকল্পের তিন গাইড হাইপোথার্মিয়ায় মারা যায়।

দলটি শেষ পর্যন্ত গত মাসে একটি তুষার ঢ়াকা পর্বত চূড়ায় পৌঁছায়। যেখানে বিমানটি ধাক্কা খেয়েছিল, সেখানে বিমানের ধ্বংসাবশেষ দেখে হারিয়ে যাওয়া বিমানটি শনাক্ত করেন। এই ধ্বংসাবশেষের মধ্যে মানুষের কোনো দেহাবশেষ পাওয়া যায়নি।

এতদিন পর আর কেউ বেঁচে থাকবে না এটি জানা ছিল সবার।  তবে আশা ছিল দুর্ঘটনার শিকার হওয়া মানুষগুলোর চিহ্ন হয়তো পাওয়া যাবে;  কিন্তু এর কিছুই পাওয়া যায়নি। পাওয়া যায়নি মানুষের কোনো চিহ্ন।  

news24bd.tv/আলী  

;