উপাচার্য পদের অবমূল্যায়ন করছেন অনেক শিক্ষক
উপাচার্য পদের অবমূল্যায়ন করছেন অনেক শিক্ষক

শাবিপ্রবিতে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন

উপাচার্য পদের অবমূল্যায়ন করছেন অনেক শিক্ষক

সজল দাস

ব্যক্তিস্বার্থকে অধিক প্রাধান্য দিয়ে উপাচার্য পদের অবমূল্যায়ন করছেন অনেক শিক্ষক।  বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের এক সদস্য বলছেন, কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনিয়ম তদন্তে উঠে এসেছে এমন তথ্য।  শিক্ষাবিদ ড. একে আজাদ চৌধুরীর মত, শিক্ষক-শিক্ষার্থীর মধ্যে দূরত্ব রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ ঠিক রাখা সম্ভব নয়।  

শিক্ষার্থী-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্র শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

উপাচার্যের পদত্যাগের একদফা দাবির আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পুলিশি অ্যাকশনের সমালোচনা চলছে চারিদিকে।

এর আগেও নানা অনিয়ম দূর্নীতির কারণে আলোচনায় এসেছেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। সাবেক ও বর্তমান অন্তত ১০ জন উপাচার্যের বিরুদ্ধে এরই মধ্যে তদন্ত শেষ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন। যেখানে রাজশাহী, গোপালগঞ্জ কিংবা বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতাও মিলেছে।

তবে আইনী ক্ষমতা না থাকায় এনিয়ে তদন্ত ছাড়া কিছুই করার নেই ইউজিসির। শাবিপ্রবিতে একটি হলের প্রভোস্টের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীরা অনাস্থা দেন শুরুতে।

এখন সেই ঘটনাই মোড় নিয়েছে উপাচার্য পদত্যাগের আন্দোলনে।  এই আন্দোলন থামাতে কিংবা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলতে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি বা অভিজ্ঞ শিক্ষকদের তৎপরতা তেমন একটা চোখে পরেনি।  তাহলে কি, কিছুটা ভেঙ্গে পরেছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী সম্পর্ক?

আরও পড়ুন:


শাবিপ্রবি উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম

উত্তাল শাবি, রাতভর শিক্ষার্থীদের আন্দোলন


শিক্ষাবিদ ড. একে আজাদ চৌধুরী বলেন, উপাচার্য হওয়ার পর একজন শিক্ষককে শুধুমাত্র প্রশাসনিক কাজে নয় বরং একাডেমিক অঙ্গনেও সময় দিতে হবে বেশি করে।

news24bd.tv রিমু

;