চট্টগ্রামের টানা দ্বিতীয় জয়
চট্টগ্রামের টানা দ্বিতীয় জয়

সংগৃহীত ছবি

চট্টগ্রামের টানা দ্বিতীয় জয়

অনলাইন ডেস্ক

বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) অষ্টম আসরের শুরুতে ফরচুন বরিশালের কাছে হেরে আসর শুরু করলেও তরুণ অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজের নেতৃত্বে ঠিকই ঘুরে দাঁড়িয়েছে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। আজ খুলনা টাইগার্সকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে চট্ট্রলার দলটা। তরুণদের নিয়ে গড়া চট্টগ্রামের ব্যাটার ও বোলার সবাই মিলে দলগত নৈপুণ্য দেখিয়ে এই জয় ছিনিয়ে নিয়েছেন।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম ৪ ওভারেই তানজিদ হাসান তামিম ও রনি তালুকদারকে হারায় খুলনা।

তামিম ৯ বলে ৯ রান ও রনি ৬ বলে ৭ রান করেন। শেখ মেহেদী হাসান ও আন্দ্রে ফ্লেচার ইনিংস গুছানোর কাজ করেন। তবে দুর্ভাগ্যবশত মাথায় আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়েন ফ্লেচার। ১২ বলে ১৬ রান করেন।

ভালো খেলতে থাকা মেহেদী আউট হন কেনার লুইসের এক অবিশ্বাস্য বলে। ৫ বাউন্ডারিতে ২৪ বলে ৩০ রান করেন মেহেদী। মুশফিক বিদায় নেন ১৫ বলে ১১ রানের শ্লথ ইনিংস খেলে। ফ্লেচারের বদলে কনকাশন-সাব হিসেবে মাঠে নামেন সিকান্দার রাজা। ১২ বলে ২২ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে রেজাউর রহমান রাজার বলে আউট হন তিনি।

খুলনার ইনিংসে বাকি সময় ইয়াসির একাই লড়াই করেন। ১৯তম ওভারে ইয়াসির আউট হওয়ার সাথেসাথেই খুলনার জয়ের স্বপ্নও শেষ হয়ে যায়। ২৬ বলে ৪০ রান করেন ইয়াসির। খুলনা থামে ১৬৫ রানে। ফলে ২৫ রানে হেরে যায় মুশফিকুর রহিমের দল। চট্টগ্রামের পক্ষে মিরাজ, শরিফুল ও রেজা দুইটি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নামে চট্টগ্রাম। সোহরাওয়ার্দী শুভর প্রথম ওভারে ২৩ রান সংগ্রহ করে ম্যাচ শুরু করেন কেনার লুইস ও উইল জ্যাকস। মাত্র ৭ বলের ঝড়েই থেমে যান জ্যাকস। কামরুল ইসলাম রাব্বির শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ১৭ রানের ইনিংসটি সাজান ১ চার ও ২ ছয়ের মারে। দ্বিতীয় উইকেটে আফিফ হোসেনের সঙ্গে ২৩ রান যোগ করেন লুইস। রাব্বির দ্বিতীয় শিকার হন ১৪ বলে ২৫ রান করে।  

এরপর দলের হাল ধরেন আফিফ ও সাব্বির রহমান। তবে সুবিধা করতে পারেনি তাদের জুটি। রান আউটের ফাঁদে পড়ে আফিফ আউট হন ১৩ বলে ১৫ রান করে। চতুর্থ উইকেটে বড় জুটি গড়ে দলকে বড় সংগ্রহের দিকে নিয়ে যান সাব্বির ও অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ। যদিও ফরহাদ রেজার এক ওভারে সাব্বি-মিরাজ দুজনেই জীবন পান। পরে নাভিন উল হককে স্কুপ করতে গিয়ে ক্যাচ আউট হন মিরাজ। ২৩ বলে ৩০ রান করেন।  

সাকিব উইকেটে থিতু হয়েও ফেরেন ৩৩ বলে ৩২ রানের ধীরগতির ইনিংস খেলে। তার ইনিংসে ছিল একটি ছক্কা। শেষ দিকে বেনি হাওয়েল এবং নাঈম ইসলাম ব্যাটিং ঝড় তোলেন। যেখানে শেষ ৫ ওভারে চট্টগ্রাম সংগ্রহ করে ৬২ রান। হাওয়েল ২০ বলে ৩৪ রানে অপরাজিত থাকেন। তার ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ১টি ছক্কা। নাঈম ২ ছক্কায় ৫ বলে ১৫ রান করেন। এতে নির্ধারিত ২০ ওভারে চট্টগ্রাম সংগ্রহ করে ৭ উইকেটে ১৯০ রান। খুলনার পক্ষে কামরুল দুইটি এবং নাভীন ও রেজা একটি করে উইকেট পান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ১৯০/৭ (২০ ওভার)
হাওয়েল ৩৩*, মিরাজ ৩০, লুইস ২৫, জ্যাকস ১৭, নাঈম ১৫;
কামরুল ২/৩৫।

খুলনা টাইগার্স ১৬৫/৯ (২০ ওভার)
ইয়াসির ৪০, মেহেদী ৩০, রাজা ২২, মুশফিক ১১;
রাজা ২/২০, শরিফুল ২/২৯, মিরাজ ২/৪২।

চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ২৫ রানে জয়ী।

news24bd.tv/আলী  

;