জেলে বসে পরীক্ষায় প্রথম হলো খুনের আসামি!
জেলে বসে পরীক্ষায় প্রথম হলো খুনের আসামি!

সৈয়দ নাসিম শাহ

জেলে বসে পরীক্ষায় প্রথম হলো খুনের আসামি!

অনলাইন ডেস্ক

খুনের দায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয় সৈয়দ নাসিম শাহ। সেই থেকে জেলেই আছেন তিনি। কিন্তু জেলে বসেই  উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নিয়ে প্রথম স্থান অর্জন করেছে  বছর পঁয়ত্রিশের নাসিম শাহ। বর্তমানে সে পাকিস্তানের করাচির সেন্ট্রাল জেলের সাঁজা কাটছেন।

পরীক্ষায় তার এই অবিশ্বাস্য সাফল্যের জন্য পুরস্কারও দিয়েছে জেল কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘ পাঁচ বছর পর মায়ের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয় নাসিমকে।

এদিকে জেলের  ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট সৈয়দ সুমরো  জানিয়েছেন,ছেলে খুনের দায়ে অভিযুক্ত। এই কারণে দীর্ঘ পাঁচ বছর নাসিমের সঙ্গে দেখা করতে রাজি হয়নি তাঁর মা।  অবশেষে ছেলের পরীক্ষায় প্রথম হওয়ার খবর শুনে সিদ্ধান্ত বদল করেন তিনি।
গত সোমবার নাসিমের সঙ্গে দেখা করেন তার মা এবং নাসিমের স্ত্রী। পুলিশের বিশেষ অনুমতিতে কথা হয় মা-ছেলের। দীর্ঘদিন পর কারাগারে মাকে দেখতে পেয়ে আবেগে ফেটে পড়ে নাসিম। মাকে জড়িয়ে ধরেন তিনি। দু’জনের চোখই ভিজে যায় কান্নায়। তারপর তার অপরাধের জন্য মায়ের পা ধরে ক্ষমাও চান নাসিম।  

২০২১ সালে প্রাইভেটে ইন্টারমিডিয়েট পরীক্ষা দেন। আর সেই পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে প্রথম স্থান অর্জন করেন তিনি।  নাসিমের সাফল্যে তাকে আর্থিক সহায়তা করতে এগিয়ে আসে পাকিস্তান ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস। ভবিষ্যতে আরও শিক্ষালাভের জন্য তাকে এক লক্ষ টাকার স্কলারশিপ দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালে একজনকে গুলি করে হত্যা করে নাসিম। ২০১৮ সালে ২৫ বছরের জন্য যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয় সে।  

সূত্র : এনডিটিভি ও এই সময়।

news24bd.tv/আলী  

;