ভুমধ্যসাগরে প্রাণ হারালো এক বাংলাদেশি
ভুমধ্যসাগরে প্রাণ হারালো এক বাংলাদেশি

সংগৃহীত ছবি

ভুমধ্যসাগরে প্রাণ হারালো এক বাংলাদেশি

বেলাল রিজভী,মাদারীপুর

অবৈধ পথে ইতালি যাবার পথে আবারও প্রান হারালো এক বাংলাদেশী। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে,অবৈধভাবে ইতালি যাবার সময় ঝড়োবাতাসে তিউনিউসিয়ার ভুমধ্যসাগরে প্রাণ হারিয়েছে জয় তালুকদার নামে এক তরুন।  

নিহত জয় তালুকদার মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের বড়াইলবাড়ি গ্রামের প্রেমানন্দ তালুকদারের ছেলে।  

প্রচন্ড ঠান্ডায় জয় তালুকদার মারা গেছে বলে জানা গেছে।

এ সময় গুরুতর অসুস্থ হয়েছে একই এলাকার ৬জন। একই এলাকার মিন্টু, প্রদীপ, টুটুল, তন্ময়, রিয়াজ ও সবুজের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। শুক্রবার নিহতের খবর পান জয়ের স্বজনরা। এতে পরিবারে বইছে শোকের মাতম।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২২ জানুয়ারি অবৈধভাবে সমুদ্র পথে লিবিয়া হয়ে ইঞ্জিনচালিত নৌকায় ইতালীর উদ্দ্যেশে রওয়ানা হয় ২ শতাধিক যুবক। তিউনিসিয়ার ভুমধ্যসাগরে পৌছালে প্রচন্ড ঝড়ো বাতাসের পর টানা ৬ ঘন্টা বৃষ্টি হয়। এ সময় নৌকার মাঝি দিক হারিয়ে ফেলে। পরে ইতালীর পুলিশকে খবর দিলে তারা সবাইকে উদ্ধার করে। এ সময় অসুস্থ বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। এর আগেই প্রচন্ড ঠান্ডায় মারা যায় জয়।  

নিহতের বাবা প্রেমানন্দ তালুকদার জানান, সদর উপজেলার বড়াইলবাড়ী গ্রামের সোনমিয়া খানের ছেলে জামাল খান এলাকার সহজ সরল যুবকদের ইতালী নেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রত্যেক পরিবারের কাছ থেকে নেয় ৭ থেকে ১০লক্ষ করে টাকা নেয়। আমার ছেলে তার কারনেই মারা গেছে। আমি এর বিচার চাই।  

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দালাল জামালের নামে বিভিন্ন থানায় কমপক্ষে ১০টি মামলা রয়েছে।  

স্থানীয় জানান, মামলার পরে এলাকা ছেড়ে গাঁ ঢাকা দেয় সে। এই ঘটনার পর অভিযুক্ত দালাল জামাল খানের বাড়িতে গিয়েও তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। দীর্ঘদিন ধরে জামাল মানবপাচার করে কোটি কোটি টাকার মালিয়ে হয়েছে বলে এলাকায় বেশ গুঞ্জনও রয়েছে।  

মাদারীপুর পুলিশ সুপার গোলাম মস্তফা রাসেল জানান, পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নিবে। তবে অধিকাংশ সময় নিহতের পরিবার মামলা করে না। আমরা ক্ষতিগ্রস্তদের সব ধরনের আইনি সহায়তা দিবো।
news24bd.tv/আলী  

;