পাবজি খেলা নিয়ে বকুনি দেওয়ায় পুরো পরিবারকে খুন!
পাবজি খেলা নিয়ে বকুনি দেওয়ায় পুরো পরিবারকে খুন!

সংগৃহীত ছবি

পাবজি খেলা নিয়ে বকুনি দেওয়ায় পুরো পরিবারকে খুন!

অনলাইন ডেস্ক

পাবজি খেলার জের ধরে মা, ভাই এবং দুই বোনকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে ১৪ বছর বয়সী এক কিশোরের বিরুদ্ধে। জেইন আলী নামে পাকিস্তানি ওই কিশোর ঘটনাটি ঘটিয়েছে লাহোরের কাহনা এলাকায়। পুলিশ জানিয়েছে, পাবজি খেলার নেশায় মা, ভাই এবং দুই বোনকে হত্যা করেছে ১৪ বছর বয়সী ওই কিশোর।

পুলিশের বরাত দিয়ে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত সপ্তাহে লাহোরের কাহনা এলাকায় নাহিদ মুবারাক (৪৫), তার ছেলে তৈমুর এবং ১৭ ও ১১ বছর বয়সী দুই মেয়ের মরদেহ পাওয়া যায়।

এক বিবৃতিতে পুলিশ জানায়, পরিবারের সবাই নিহত হলেও ওই কিশোরের ছেলের কিছু হয়নি। ওই কিশোর ছেলেই এমন ঘটনা ঘটিয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

বিবৃতিতে বলা হয়, পাবজি (প্লেয়ারআননোন’স ব্যাটলগ্রাউন্ডস) আসক্ত ছেলে স্বীকার করেছে যে গেমের প্রভাবে সে তার মা এবং ভাইবোনদের হত্যা করেছে। দীর্ঘ সময় এই অনলাইন গেম খেলার কারণে তার কিছু মানসিক সমস্যা তৈরি হয়েছে বলে জানানো হয় ওই বিবৃতিতে।

আরও পড়ুন:

মিয়ানমারে বেসামরিক শাসন পুনরুদ্ধার করতে জাতিসংঘের আহ্বান

দেশে এখন আর না খেয়ে কেউ মারা যায় না : কৃষিমন্ত্রী

ঘটনার দিন পাবজি খেলা নিয়ে ছেলেকে বকাঝকা করেন নাহিদ। এরপর মায়ের পিস্তল নিয়ে ঘুমন্ত পরিবারের সবাইকে হত্যা করে ওই কিশোর। পরদিন সকালে প্রতিবেশীরা পুলিশে খবর দিলে ওই কিশোর দাবি করে, তিনি দোতলায় ছিলেন। তাই তার পরিবারের হত্যাকাণ্ড বিষয়ে জানতেন না তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, পরিবারের সুরক্ষার জন্য এই পিস্তল লাইসেন্স করেছিলেন নাহিদ। পরিবারের সবাইকে হত্যার পর ওই পিস্তল একটি ড্রেনে ফেলে দেয় ওই কিশোর। তবে সেটি এখনও উদ্ধার করা যায়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সূত্র : এনডিটিভি

news24bd.tv/এমি-জান্নাত