দক্ষিণ-পশ্চিমের অন্যতম উজানগ্রামের মহিষের হাট
দক্ষিণ-পশ্চিমের অন্যতম উজানগ্রামের মহিষের হাট

মহিষের হাট

দক্ষিণ-পশ্চিমের অন্যতম উজানগ্রামের মহিষের হাট

জাহিদুজ্জামান, কুষ্টিয়া

দক্ষিণ-পশ্চিমের অন্যতম উজানগ্রামের মহিষের হাটের জৌলুস কমে এসেছে। এক সময় এ হাটে শত শত মহিষ উঠতো।

হাট কর্তৃপক্ষ বলছে, বাড়ি বাড়ি, বাথানে এবং অনলাইনে বেচাকেনা চালু হওয়ায় হাটের রাজস্ব আদায় কমে গেছে। তবে, মহিষের সংখ্যা কমে গেলেও ঐতিহ্য ধরে রেখেছে হাট।

নদীপাড়ে মহিষ তাড়া করে দেখেন ক্রেতারা। এ কারণেই এখনো আসেন দূর দূরান্তের ক্রেতা-বিক্রেতারা।  

কুষ্টিয়া সদরে কুমার নদীপাড়ের উজানগ্রামে প্রতি শনিবার বসে মহিষের হাট। যুগ যুগ ধরে চলে আসা এই হাটের বিশাল জায়গায় মহিষ তাড়া করে দেখে নেন ক্রেতারা। এখানে দল ধরে বা জোড়ায় জোড়ায় মহিষ বিক্রি হয়। একটু দাম-দর এগুলেই ক্রেতারা দেখে নিতে চান মহিষ কতটা তেজী। আছে কী-না শারিরীক কোন সমস্যা।

আরও পড়ুন:


ইউক্রেন সংকট: নিরাপত্তা পরিষদে মার্কিন-রাশিয়ার দোষারোপ


কয়েক বছর আগেও যেখানে প্রতি হাটে শত শত মহিষ বেচা-কেনা হতো সেখানে এখন গড় বেচাকেনা নেমে এসেছে ৩০ এ।  

মহিষ পালন লাভজনক, কুষ্টিয়ার পদ্মা নদীপাড়ে রয়েছে অনেক বাথান। এদের জন্য প্রাণিসম্পদ বিভাগের রয়েছে মহিষ উন্নয়ন প্রকল্প।

উজানগ্রাম হাটে এখন মাংশের জন্যও মহিষ কিনে নিচ্ছেন কসাইরা।

news24bd.tv রিমু