এখন কনডেম সেলে সময় কাটছে প্রদীপ-লিয়াকতের
এখন কনডেম সেলে সময় কাটছে প্রদীপ-লিয়াকতের

ফাইল ছবি

এখন কনডেম সেলে সময় কাটছে প্রদীপ-লিয়াকতের

অনলাইন ডেস্ক

বহুল আলোচিত মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় মৃত্যুদন্ডাদেশ প্রাপ্ত আসামি প্রদীপ কুমার দাশ ও লিয়াকত আলীকে কক্সবাজার জেলা কারাগারের কনডেম সেলে রাখা হয়েছে। খাবার থেকে শুরু করে সব সুযোগ-সুবিধা জেল কোড অনুযায়ী তাদের দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার জেলা কারাগারের জেল সুপার নেছার আলম।

এদিকে মৃত্যুদণ্ডে দন্ডিত প্রদীপ কুমার দাশ ও লিয়াকত আলীর মামলার রায়ের কপি সাত দিনের মধ্যে হাইকোর্টে যেতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন সিনহা হত্যা মামলায় বাদীপক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর।

অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর বলেন, মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামিদের ফাঁসির আদেশ হাই কোর্টকে অবহিত করতে হয়।

হাইকোর্টকে অবহিত না করা পর্যন্ত রায় কার্যকর হবে না। এ ছাড়া আসামি পক্ষ তো আপিল করতে পারে। মামলায় সন্তুষ্ট না হলে উচ্চ আদালতে যাওয়ার এখতিয়ার সবার রয়েছে।

প্রসঙ্গত, কনডেম সেল মূলত ৬ ফুট বাই ৬ ফুট একটি ছোট ঘর, যেখানে ফাঁসির আসামিদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের আগে পর্যন্ত রাখা হয়। অন্ধকার এ ঘরের ভেতরেই থাকে শৌচাগার। যেখানে একজন সুস্থ মানুষের পক্ষে বেঁচে থাকা কঠিন, সেখানে বসেই মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করবেন সাবেক ওসি প্রদীপ ও পরিদর্শক লিয়াকত।

উল্লেখ্য, সোমবার (৩১ জানুয়ারি) বিকেলে কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাইল মেজর সিনহা হত্যা মামলার যুগান্তকারী রায় ঘোষণা করেন। এ মামলায় ওসি প্রদীপ ও পরিদর্শক লিয়াকতকে মৃত্যুদণ্ড; নন্দদুলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাগর দেব ও রুবেল শর্মা, নুরুল আমিন, মো. নেজামুদ্দিন ও আয়াজ উদ্দিনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ৭ জনকে খালাস দেয়া হয়েছে।

news24bd.tv/আলী