আমি কখনই হিজাব বা বোরকা পরার পক্ষে নই : জাভেদ আখতার 
আমি কখনই হিজাব বা বোরকা পরার পক্ষে নই : জাভেদ আখতার 

সংগৃহীত ছবি

আমি কখনই হিজাব বা বোরকা পরার পক্ষে নই : জাভেদ আখতার 

অনলাইন ডেস্ক

ভারতের কর্নাটকে হিজাব পরার কারণে ক্লাসে নিষিদ্ধ হওয়া ছাত্রীদের নিয়ে এখন উত্তাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। এ নিয়মের বিরুদ্ধে এখন একে একে সবাই মুখ খুলছেন। কেউ হিজাব পরুক কিংবা না পরুক সেটা তার একান্ত ব্যক্তিগত বিষয়। কোনো বাধ্যতামূলক সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে ধর্মীয় গোঁড়ামি।

এবার এ বিষয়ে মুখ খুললেন ভারতের জনপ্রিয় গীতিকার ও চিত্রনাট্যকার জাভেদ আখতার।

বৃহস্পতিবার জাভেদ আখতার তার টুইটে লেখেন, আমি কখনই হিজাব বা বোরকা পরার পক্ষে ছিলাম না। আমি এখনও এরই পক্ষে আছি কিন্তু একইসঙ্গে এই গুন্ডারা যারা একটি মেয়েকে হিজাব পরার জন্য ভয় দেখানোর চেষ্টা করে এবং ব্যর্থ হয়, তাদের জন্য ধিক্কার। এটাই কী তাদের কাছে পুরুষত্বের ধারণা? জাভেদ  আখতারের পাশাপাশি হিজাব বিতর্কে সরব হয়েছেন স্বরা ভাস্কর থেকে হেমা মালিনীও।

 

এদিকে হিজাব কাণ্ড নিয়ে কথা বলেছেন ওই ছাত্রীও। এক জাতীয় সংবাদ মাধ্যমকে মুসকান বলেন,  আমি ভয় পাইনি। কলেজে ঢোকার সময় আমি বোরকা পরা দেখে তারা আমাকে ঢুকতে দিতে চাইছিল না। তারা 'জয় শ্রীরাম' স্লোগান দিতে থাকলে আমি 'আল্লাহু আকবার' বলতে শুরু করি। কলেজের অধ্যক্ষও আমাকে সমর্থন করেছেন এবং আমাকে সুরক্ষা দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ভারতের কর্ণাটকজুড়ে চলা উত্তেজনার মধ্যে বোরকা-হিজাব পরে কলেজ ক্যাম্পাসে এসে হয়রানির শিকার হয়েছেন মুসকান খান নামে এক ছাত্রী। তবে গেরুয়া উত্তরীয় পরা একদল যুবকের ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগানের সামনে ‘আল্লাহু আকবর’ ধ্বনি দিয়ে অবিচল থেকেছেন ওই ছাত্রী। এ ঘটনার একটি ভিডিও নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

ভিডিওটিতে দেখা গেছে, হিজাব পরে মুসকান যখন তার স্কুটি পার্কিং করে ক্লাসের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন, তখন বেশ কিছু মানুষ তাকে অনুসরণ করছে। গেরুয়া রঙের স্কার্ফ পরিহিত একদল ব্যক্তি ‘জয় শ্রী রাম’ শ্লোগানে মুসকানের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে আর চিৎকার করছে। মুসকানও তখন ভিড়ের দিকে ফিরে হাত তুলে ‘আল্লাহু আকবার’ বলে চিৎকার করতে থাকে।

এর আগেও ভারতের স্বাধীনতা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে কঙ্গনার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ নায়িকার বিরুদ্ধে মুম্বাই পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন আম আদমি পার্টির (এএপি) নেতা প্রীতি মেনন।

news24bd.tv/আলী