আইপিএল নিলামের প্রথম দিন বাজিমাত করেন যারা
আইপিএল নিলামের প্রথম দিন বাজিমাত করেন যারা

প্রথম দিনের সবচেয়ে দামি ঈশান কিশান

আইপিএল নিলামের প্রথম দিন বাজিমাত করেন যারা

অনলাইন ডেস্ক

আইপিএলের মেগা নিলাম বসেছে ভারতের ব্যাঙ্গালুরুর হোটেল আইটিসি গার্ডেনিয়ায়। শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ৩০ মিনিটে শুরু হয় নিলামের প্রথম পর্ব। দুইদিনের এই মেগা নিলামে ১০ ফ্র্যাঞ্চাইজি ৩৩ জন ক্রিকেটারকে আগেই নিয়ে রেখেছিল। তবু নিলামের প্রথম দিন সব উত্তেজনা নিয়েই হাজির হয়েছিল।

 

নিলামের প্রথম দিনে সর্বোচ্চ মূল্য পেয়েছেন ঈশান কিশান। ভারতের এই উইকেট রক্ষক ও ব্যাটারকে ১৫ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে দলে ফিরিয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ভারত জাতীয় দলের এই খেলোয়াড়কে ফিরে পেতে বেশ আগ্রহ ছিলো মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের। কিন্তু মারকুটে এই ব্যাটসম্যানকে অন্য দলগুলোও ছাড়তে নারাজ।

দলগুলোর এই লড়াইয়ের ফাঁকে সর্বোচ্চ মূল্য পেয়ে যান এই বাঁহাতি ওপেনার।

নিলামের প্রথম দিনে ঈশানের পরে দ্বিতীয় সর্বাধিক দামে বিক্রি হয়েছেন দীপক চাহার। প্রথম দিনের শেষ বেলায় ২ কোটি টাকা বেস প্রাইসের দীপক চাহারের জন্য দর হাঁকে দিল্লি।

 দিপক চাহার

তাকে নেয়ার লড়াইয়ে নামে হায়দরাবাদ। চেন্নাই সুপার কিংস শেষ মুহূর্তে লড়াইয়ে নামে। শেষ পর্যন্ত চেন্নাই ১৪ কোটি টাকায় দলে ফেরায় দীপক চাহারকে। এখনও পর্যন্ত চেন্নাইয়ের নিলামের ইতিহাসে এটিই সব থেকে বেশি খরচ।

চড়া দাম পেয়েছেন শ্রেয়াস আইয়ার, শার্দুল ঠাকুর, প্রসিধ কৃষ্ণ, হার্শাল প্যাটেল, নিকোলাস পুরান ভানিন্দু হাসারাঙ্গারা।

শ্রেয়াস আয়ারকে চড়া দামে দলে নিয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। দিনের শুরুতে ২ কোটির শ্রেয়সের জন্য আরসিবি ও দিল্লি লড়াই শুরু করলে সেখানে যোগ দেয় লক্ষ্ণৌ। পরে কেকেআর আগ্রাহ দেখায়। তাদের লড়াই চলে দিল্লির সঙ্গে। গুরজাট টাইটানস ১০ কোটি টারা দর হাকে। শেষ পর্যন্ত ১২ কোটি ২৫ লাখ টাকায় শ্রেয়সকে দলে নেন কলকাতা। দলটির অধিনায়ক করতেই ভারতীয় মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানকে এত দাম দিয়ে দলে নিয়েছে। গত আসরে দিল্লির হয়ে খেলেছিলেন তিনি।

ঘটনাবহুল দিনে চমক দেখান লঙ্কান অলরাউন্ডার হাসারাঙ্গা। গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ঝলক দেখানো এই স্পিনিং অলরাউন্ডারকে ১০ কোটি ৭৫ লাখ টাকায় দলে নিয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু।

ভানিন্দু হাসারাঙ্গা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ঝড়ো ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি আসরে সর্বোচ্চ ১৬ উইকেট শিকার করে নজরে আসেন এই লঙ্কান অলরাউন্ডার।

পেস অলরাউন্ডার হার্শাল প্যাটেলকে ফেরাতেও একই পরিমাণ অর্থ খরচ করতে হয়েছে বেঙ্গালুরুরকে।

হার্শাল প্যাটেল

আসরে চতুর্থ সর্বোচ্চ মূল্য পেয়েছেন শারদুল ঠাকুর। তাকে ১০ কোটি ৭৫ লাখ রুপিতে দলে ভিড়িয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস।

নিলামের প্রথম দিনের হিসেবে কিষান সবচেয়ে দামি হতে পারেন, কিন্তু  চমক দেখিয়েছেন আভেশ খান। ভারতের হয়ে এখনো জাতীয় দলে খেলা হয়নি তার। তবে মধ্যপ্রদেশের এই পেসারের আকাশ ছোঁয়া দাম সবাইকে তাক লাগিয়েছে।

আভেশ খান

তাঁকে পেতেই লড়েছে চারটি দল। ভারতের অনূর্ধ্ব -১৯ দলের সাবেক এই ক্রিকেটারের ভিত্তিমূল্য ছিলো ২০ লাখ রুপি। তাকে কিনতে নিলাম যুদ্ধে প্রথমে প্রতিযোগীতা চলে লখনৌ সুপার জায়ান্ট ও চেন্নাই সুপার কিংসের মধ্যে। তাদের লড়াইয়ে এক সময় আভেশের মূল্য গিয়ে দাঁড়ায় ৪ কোটি রুপিতে। এবার লড়াইয়ে যোগ দেয় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। কিন্তু ৮ কোটি ছাড়িয়ে যেতে হাল ছেড়ে দেয় মুম্বাই। উত্তেজনাকর নিলাম যুদ্ধে আভেশের দিকে হাত বাড়ায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। তারা দাম হাঁকে ৯ কোটি ৭৫ লাখ। লখনৌ এবার ১০ কোটি রুপি দাম হাকলে হার মানে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। শেষ পর্যন্ত নতুন দল লক্ষ্ণৌ সুপার জায়ান্টসই দলে ভেড়ায় তাঁকে।  

প্রথম দিনে দাপট দেখানো পেসারদের মধ্যে শুধু আবেশ নয়, প্রসিধ কৃষ্ণা, হর্শাল প্যাটেলদের মতো তারকাদ্যুতিতে পিছিয়ে থাকা পেসাররাও ১০ কোটি রুপির বেশি পেয়েছেন।  

প্রথম দিনের নিলামে আরেক চমক ডেওয়াল্ড ব্রেভিস। চেন্নাই, পাঞ্জাব ও মুম্বাইয়ের ত্রিমুখী লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত ৩ কোটি রুপিতে তরুণ দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যানকে দলে টানে মুম্বাই।

ডেওয়াল্ড ব্রেভিস

ব্যাটিংয়ের ধরনে এবি ডি ভিলিয়ার্সের সঙ্গে অবিশ্বাস্য মিলের কারণে তাকে ডাকা হয় ‘বেবি এবি’ নামে। কদিন আগে শেষ হওয়া যুব বিশ্বকাপে আসরে রানের রেকর্ড গড়েন ১৮ বছর বয়সী ব্রেভিস। ৬ ইনিংসে ৮৪.৩৩ গড়ে ৫০৬ রান করেন তিনি। এছাড়াও লেগ স্পিনে ২৮.৫৭ গড়ে নেন ৭ উইকেট।

সব মিলিয়ে ৭৪ জন ক্রিকেটারকে দলে টানা হয়েছে নিলামে। তাঁদের মধ্যে ১০ জন ক্রিকেটার ১০ কোটি বা এর বেশি দামে বিভিন্ন দলে গেছেন। এঁদের মধ্যে ৬ জনই পেসার।

news24bd.tv/ নাজিম