ঝিনাইদহে ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণের শিকার
ঝিনাইদহে ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণের শিকার

প্রতীকী ছবি

ঝিনাইদহে ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণের শিকার

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী (১২) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সদর উপজেলার হরিশংকরপুর ইউনিয়নের পানামী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী পরিবার অসুস্থ অবস্থায় কিশোরীকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। মেয়েটি উপজেলার একটি স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী।

এ ঘটনায় আজ রোববার দুপুরে সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

তবে টাকার বিনিমিয়ে অভিযুক্তকে বাঁচাতে এলাকার এক প্রভাবশালী ব্যক্তি তদবির করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যার দিকে ছাত্রীর নিজ বাড়িতে টিভি দেখতে আসে মতিয়ার (৫৫) নামে এক ব্যক্তি। বাড়িতে কেউ না থাকায় ওই ছাত্রীকে হাত-মুখ বেঁধে ধর্ষণ করেন অভিযুক্ত।

মতিয়ার বিশ্বাস পানামী গ্রামের জিন্দার বিশ্বাসের ছেলে। বর্তমানে ওই কিশোরী ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। ওই ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

ভুক্তভোগীর মা জানিয়েছেন, তামাক চাষের কাজে শনিবার পার্শ্ববর্তী শৈলকুপা উপজেলার মীনগ্রামে ছিলেন তিনি ও তার স্বামী। তার মেয়ে বাড়িতে একা ছিল। এ সুযোগে টিভি দেখতে এসে মেয়ের হাত-মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে মতিয়ার। ঘটনাটি দেখে চিৎকার দেয় প্রতিবেশী অন্য এক কিশারী। ওই সময় মতিয়ার নির্যাতিতা মেয়েকে ১০০ টাকা দিয়ে পালিয়ে যায়।

ওই গ্রামের বাসিন্দা আবেদ আলী জানান, ঘটনার পরে পাড়ার লোকজন মতিয়ারকে খোঁজাখুঁজি করে।

ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ সোহেল রানা জানান, ঘটনাটি সত্য। অভিযোগও পেয়েছি। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

news24bd.tv তৌহিদ