বীমার লেনদেন ব্যাংকে চায় আইডিআর

বীমার লেনদেন ব্যাংকে চায় আইডিআর

বাবু কামরুজ্জামান

বীমা খাতকে শৃঙ্খলার আওতায় নিয়ে আসতে ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে সরাসরি সেবা নিশ্চিত করতে চায় বীমা নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ।

সংস্থার চেয়ারম্যান বলেছেন, ব্যাংক হিসাব থেকে সরাসরি প্রিমিয়ামের টাকা কেটে নেওয়া হলে, বন্ধ হবে ভূয়া বিক্রি। এছাড়া নির্ভূল তথ্য ও সেবা দিতে বীমা খাতে ই-রিসিপ্ট পদ্ধতিও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ব্যাংক অ্যাসিউরেন্স বাস্তবায়নে খসড়া নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংস্থার চেয়ারম্যান এম মোশাররফ হোসেন।

ব্যাংকের মাধ্যমে বিমা পণ্য বা সেবা বিক্রির যে পদ্ধতি, সেটাই ব্যাংকাস্যুরেন্স। আশির দশকে ফ্রান্স ও স্পেনের মতো পশ্চিমা বিশ্বে এটি চালু হলেও পরে গোটা ইউরোপ ও এশিয়াতেও জনপ্রিয় হয় এই সেবা।

বাংলাদেশেও এই সেবা বাস্তবায়ন করা গেলে  বিমা খাতের ব্যাপক প্রসার হবে বলে মনে করেন খাত সংশ্লিষ্টরা।

তবে সুনির্দিষ্ট নীতিমালার অভাবে নতুন এই আর্থিক পণ্যের সম্ভাবনা এখনো কাজে লাগানো যায়নি।

বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ চেয়ারম্যান নিউজ টোয়েন্টিফোরকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ব্যাংকাসুরেন্স সেবা চালু করতে খসড়া নীতিমালা এখন চূড়ান্ত।

বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) চেয়ারম্যান ড. এম. মোশাররফ হোসেন বলেন, প্রথমে হয়তো আমরা এক বছরের মতো পাইলটিং এর মতো চিন্তা করব। সেখানে অপারেশন ডিফিকাল্টি দেখে ফাইনাল করব।

বিশ্বব্যাপি বীমা খাতের আস্থা ও জনপ্রিয়তা নিশ্চিত করা গেলেও বাংলাদেশ এখনো অনেকটাই পিছিয়ে। তবে ব্যাংকাসুরেন্স চালু হলে গ্রাহকের এ অবস্থা পাল্টে যাবে বলে মনে করছে বীমা নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুক এর হিসাবে বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপিতে  বীমা খাতের অবদান এখনো দশমিক ৫ শতাংশ। যা প্রতিবেশী দেশের চেয়ে অনেক পিছিয়ে। তবে বীমা খাতে আস্থা ফেরাতে এবং স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে একগুচ্ছ কর্মসূচি বাস্তবায়নে কাজ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংস্থার চেয়ারম্যান।

বাংলাদেশে মাথাপিছু বীমা ব্যয় এখনো ১০ মার্কিন ডলারের নিচে।  প্রায় সাড়ে ১৬ কোটি জনসংখ্যার তুলনায় যা খুবই নগণ্য।

বীমার  বাইরে থাকা সম্ভাবনাময় বৃহৎ জনগোষ্ঠিকে এ সেবার আওতায় আনতে সকলকে ইতিবাচক মনোভঙ্গি নিয়ে এগিয়ে আসার কথা বলছেন এই কর্মকর্তা।

news24bd.tv তৌহিদ

এই রকম আরও টপিক