খাদ্য সংকটে বিলুপ্তির পথে বানর 
খাদ্য সংকটে বিলুপ্তির পথে বানর 

সংগৃহীত ছবি

খাদ্য সংকটে বিলুপ্তির পথে বানর 

মো. আল আমিন গাজিপুর

বাংলাদেশের জীববৈচিত্র্যের একটি অংশ দখল করে আছে বানর। দেশের বিভিন্ন এলাকায় বানরের পদচারণা থাকলেও ক্রমশ হারিয়ে যেতে বসেছে প্রকৃতির অন্যতম এ প্রাণীটি। নগরায়ণ ও খাদ্যসংকটে এদের সংখ্যা ক্রমশ কমে যাচ্ছে। এদের রক্ষায় নেই সরকারি বা বেসরকারি কোনো পদক্ষেপ।

দীর্ঘদিন ধরে খাদ্যের অভাবে বানরগুলো অপুষ্টির শিকার হয়ে মারা যাচ্ছে। দিন দিন বানরের সংখ্যা কমছে। এভাবে চলতে থাকলে একসময় হয়তো বিলুপ্তি ঘটবে প্রাণীটির।  

তবে উপজেলা প্রশাসন বলছে প্রাণী বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা করা হবে বানরের খাবারের।

 

শীতলক্ষ্যার পারে নদীকেন্দ্রিক বাণিজ্যিক কেন্দ্র হিসেবে রাজধানীর পাশের জেলা গাজীপুরের শ্রীপুরে প্রসিদ্ধ বরমী বাজার। এ বাজারের ইতিহাসের সঙ্গে জড়িয়ে আছে বানরের অবাধ বিচরণের বিষয়টিও। কিন্তু সময়ের বিবর্তনে জনবসতি গড়ে উঠলেও এখানকার বানর স্থান পরিবর্তন করেনি। ক্ষুধার যন্ত্রণায় কাতর বানরগুলো দল বেঁধে খাবারের সন্ধানে ঘুরে বেড়ায় এদিকে সেদিক। অভাবে নষ্ট করে দিয়েছে তাদের স্বভাব। শিখিয়েছে দক্ষ চুরি। সুযোগ পেলে বাসা-বাড়ি ও বিভিন্ন দোকানে ঢুকে খাবার চুরি করে এরা। এদের নেতৃত্ব দেয় সবচেয়ে প্রবীণতম বানর।

বরমী বাজারের প্রবীণ ব্যবসায়ীরা বলছেন, খাবারের অভাবে পড়লে বানর বাজারের বিভিন্ন বাড়ি থেকে কাপড় ও হালকা জিনিসপত্র নিয়ে যায়। আবার খাবার দিলে তারা সেগুলো ফেরত দিয়ে যায়। দীর্ঘদিন ক্ষুধায় ভুগলে জনবহুল এলাকায় ও ফসলি জমিতে ঢুকে বানরেরা ফসলের ক্ষতি করে।

বর্তমানে বরমী এলাকার বানরের সঠিক সংখ্যা জানাতে না পারলেও ধারণা করা হচ্ছে এখনো এই এলাকায় ৪/৫হাজার বানর রয়েছে এবং তারা বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে ভিন্ন ভিন্ন স্থানে অবস্থান করছে। এদের খাদ্যের সহায়তার আহ্বান জানান ৬নং বরমী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তোফাজ্জল হোসেন।

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম বলেন, প্রাণী বিশেষজ্ঞদের সাথে পরামর্শ করে বানরের খাবারের ব্যবস্থা করা হবে।

শ্রীপুরের শীতলক্ষ্যা নদীর পাড় ঘেঁষে প্রাচীন এই বরমী বাজারে একসময় হাজার হাজার বানর বসবাস করলেও দেখভালের অভাবে এ সংখ্যা ক্রমেই হ্রাস পাচ্ছে। এখানকার বানরগুলো হারিয়ে যাওয়ার পেছনে রয়েছে নানা কারণ। খাদ্য ও বাসস্থানের অভাব, বানরের অত্যাচার থেকে মুক্ত পেতে খাবারে বিষ মিশিয়ে হত্যা এবং এলোমেলো বৈদ্যুতিক তারে জড়িয়েও মারা যাওয়া বানর বিলুপ্তির অন্যতম কারন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। তবে স্থানীয়দের ভাষ্য মূলত খাবারের অভাবেই গত দুই যুগে চারশোর বেশি মারা গেছে।

news24bd.tv/আলী