তখন বিএনপিরও আপত্তি থাকবে না : জাফরুল্লাহ

তখন বিএনপিরও আপত্তি থাকবে না : জাফরুল্লাহ

জয়দেব দাশ

আমলাতন্ত্র এবং বিচারিক কাজে অভিজ্ঞ একজনের নেতৃত্বেই গঠিত হতে পারে নতুন নির্বাচন কমিশন।  সাবেক এক নির্বাচন কমিশনার বলছেন, সব পক্ষকে নিয়ে কাজ করতে পারবে এমন লোকদেরই বিবেচনা করা উচিত।  সার্চ কমিটিতে বিভিন্নজনের নাম প্রস্তাব করা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ ’র মতে, ইসিতে এমন কিছু মুখ আসতে পারে যাদের মেনে নেওয়া ছাড়া বিএনপি’র উপায় থাকবে না।

সিইসি ও ইসি নিয়োগে গঠিত সার্চ কমিটির দিকেই এখন সবার নজর।

 কাদের খুঁজছেন তারা? তিন শতাধিক নাম থেকে দশজন যোগ্য মানুষ কিসের ভিত্তিতে নির্ধারণ করবেন? এমন হাজারো প্রশ্ন জনমনে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, কাজটি কঠিন হলেও বিশিষ্টজনদের সাথে বৈঠক করে কিছু সুপারিশ নিয়ে শুরুটা ভালোই করেছে সার্চ কমিটি।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, সার্চ কমিটি অনেকটা উন্মুক্ত ও খোলা মনের ছিলেন বলে মনে হয়। যদিও এই সার্চ কমিটির বিরুদ্ধেই আমি বলে গেছি। সার্চ কমিটিতে গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিদের নাম থাকলে বিএনপিও তা মেনে নেবে।

সিইসি পদে বিচারিক ও সাচিবিক কাজে অভিজ্ঞ একজন আমলা, সাবেক দুই সেনাপ্রধান এবং অবসরে যাওয়া একজন পুলিশ প্রধানের কথা জোরেশোরে আলোচিত হচ্ছে।  সার্চ কমিটিও ইতিমধ্যে তালিকা সংক্ষিপ্ত করেছে।  এই সাবেক নির্বাচন কমিশনার মনে করেন, সব পক্ষকে নিয়ে কাজ করতে পারবেন এমন মানুষদেরই দায়িত্ব দেওয়া উচিত।

সাবেক নির্বাচন কমিশনার শাহনেওয়াজ বলেন, সবারই তাদের (সার্চ কমিটি) গ্রহণ করা উচিৎ।

এদিকে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি হিসেবে সার্চ কমিটির বৈঠকে অংশ নেওয়া ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী মনে করেন, সার্চ কমিটি গ্রহণযোগ্য মানুষগুলোর নাম প্রস্তাব করলে বিএনপিরও আপত্তির কিছু থাকবে না।

news24bd.tv তৌহিদ

;