গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণের পর লুটপাট
গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণের পর লুটপাট

সংগৃহীত ছবি

গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণের পর লুটপাট

অনলাইন ডেস্ক

স্বামী বাড়িতে না থাকার সুযোগ টিন কেটে ঘরে প্রবেশ করে এক গৃহবধুকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে আসকির মিয়া ও  জসিম মিয়া। ধর্ষণের পর তারা ঘরের জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে যায়। গত ৫ ডিসেম্বর রাতে  হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় গৃহবধু মামলা করে।

মামলার প্রধান দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। শনিবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে র‌্যাব-৯ হবিগঞ্জ ক্যাম্প থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, মাধবপুর উপজেলার কালিনগর গ্রামের আসকির মিয়া ও একই গ্রামের জসিম মিয়া। তারা দুজনই শ্রমিক হিসেবে কাজ করে থাকেন।

বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব জানায়, শনিবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৭টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ভুক্তভোগী নারীর স্বামী চাকরির সুবাদে নরসিংদী থাকতেন। তিনি প্রতিবেশী এক নাতনিকে নিয়ে বাসায় ঘুমাতেন। এদিকে গত ৫ ডিসেম্বর রাতে তার স্বামী বাড়িতে আসার কথা ছিল। যে কারণে ওই দিন রাতে তিনি একাই ঘুমান। এই সুযোগে রাত আড়াইটার দিকে গ্রেপ্তারকৃতরা টিন কেটে ঘরে ঢোকে। এ সময় ভুক্তভোগী নারীর হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করে। পরে তারা ঘরে থাকা স্বর্ণালঙ্কারসহ একটি মোবাইল ফোন নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী গত ৬ ডিসেম্বর মাধবপুর থানায় চারজনের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ ও চুরির মামলা করেন।

র‌্যাব-৯ হবিগঞ্জ ক্যাম্পের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মোহাম্মদ নাহিদ হাসান জানান,  শনিবার ভোরে গোপন খবরের ভিত্তিতে সরাইল থানার ইরল গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের মাধবপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

news24bd.tv/আলী