আমি কিয়েভেই থাকবো : ভিডিও বার্তায় ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট
আমি কিয়েভেই থাকবো : ভিডিও বার্তায় ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট

সংগৃহীত ছবি

আমি কিয়েভেই থাকবো : ভিডিও বার্তায় ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট

অনলাইন ডেস্ক

টানা কয়েক দিনের উত্তেজনার পর বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের ঘোষণা দেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন। এরপর ইউক্রেনে হামলা শুরু করে রুশ সেনারা। দিনভর তিন দিক থেকে ইউক্রেনে হামলা চালিয়েছে তারা। এতে ইউক্রেনের ১৩৭ সেনা নিহত হয়েছেন।

ঘর ছাড়া হয়েছেন অন্তত ১ লাখ মানুষ।  দ্বিতীয় দিনেও চলছে তুমুল লড়াই। ইতোমধ্যে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে ঢুকে পড়েছে রাশিয়ার সৈন্যরা।

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দাবি, বৃহস্পতিবার ভোরে রুশ আক্রমণ শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত তাদের সশস্ত্র সেনারা রাশিয়ান বাহিনীর প্রায় ৮০০ জনের ওপর হামলা চালিয়েছে। তবে এদের মধ্যে নিহতের সংখ্যা কতো, সে বিষয়ে মন্ত্রণালয় তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানায় নি। এছাড়াও মন্ত্রণালয়ের দাবি, এ পর্যন্ত ৩০টির বেশি রাশিয়ান ট্যাঙ্ক, ৭টি রাশিয়ান যুদ্ধবিমান এবং ৬টি হেলিকপ্টার ধ্বংস করা হয়েছে।  

আরও পড়ুন : ইউক্রেনের সঙ্গে আলোচনার আভাস রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

এমন অবস্থায়ে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জানিয়েছেন, রাশিয়ার প্রথম টার্গেট আমি, দ্বিতীয় আমার পরিবার।  

প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জানিয়েছেন, রাজধানী কিয়েভেই থাকবেন তিনি।  

এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, 'শত্রুরা (রাশিয়া) আমাকে প্রথম টার্গেট হিসেবে বেছে নিয়েছে। এরপরের টার্গেট হলো আমার পরিবার। দেশের প্রধানকে শেষ করে ওরা ইউক্রেনকে রাজনৈতিকভাবে ধ্বংস করে দিতে চায়।

আরও পড়ুন :রাশিয়ার ৪৫০ সেনা নিহত

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি জানিয়েছেন, রুশ হামলার প্রথম দিনে ১৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের 'বীর' হিসেবে উল্লেখ করেছেন তিনি।

 তিনি বলেন, রাশিয়া দানবীয় পথে হাঁটতে শুরু করেছে। ইউক্রেন প্রতিরোধ গড়ে তুলছে। কোনোমতেই নিজের স্বাধীনতা বিকিয়ে দেবে না।

এদিকে যুদ্ধ ঘোষণার প্রায় ৪৮ ঘণ্টা পর ইউক্রেনকে আলোচনার টেবিলে বসার বার্তা দিল মস্কো।  

সংবাদ সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ জানিয়েছেন, ইউক্রেন যদি অস্ত্র ফেলে দেয় তাহলে তারা আলোচনায় বসতে প্রস্তুত।
news24bd.tv/আলী  

;