পায়ে হেঁটে প্রতিবেশী দেশগুলোতে পাড়ি দিচ্ছে মানুষ
পায়ে হেঁটে প্রতিবেশী দেশগুলোতে পাড়ি দিচ্ছে মানুষ

সংগৃহীত ছবি

পায়ে হেঁটে প্রতিবেশী দেশগুলোতে পাড়ি দিচ্ছে মানুষ

মাসুদ রানা

ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের কারণে ঘরবাড়ি ছেড়ে পালাচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ। নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে পায়ে হেঁটে পাড়ি দিচ্ছেন প্রতিবেশী দেশগুলোতে। যাদের জন্য ইউরোপের দেশে দেশে তৈরি হচ্ছে শরণার্থী শিবির।

রাশিয়ার হামলা শুরুর পর তিন দিনে ইউক্রেন ছেড়ে পালিয়েছে ১ লাখ ৫০ হাজারের বেশি বাসিন্দা।

বাস্তুহারা হওয়ার পরিমাণ বেড়েই চলেছে। এরই মধ্যে ইউক্রেনে মানবিক সহায়তা বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।  

রুশ আগ্রাসন থেকে রক্ষাপেতে গন্তব্যহীভাবে ছুটছে কিয়েভবাসী, যাদের লক্ষ্য কয়েশ মাইল পাড়ি দিয়ে খুঁজে নিতে হবে নিরাপদ স্থান। তবে বিধি বাম নেই যানবাহন, কোনভাবে পায়ে হেঁটেই ছুঠছে এমনো লাখো কিয়েভবাসি। যতই সময় গড়াচ্ছে ততই ইউক্রেনে আতঙ্কিত মানুষের কান্নায় ভারি হচ্ছে সীমান্ত দেশের বাতাস।

কালো মাটির সেই দেশে এখন বইছে রক্তের বন্যা।  অনিশ্চয়তায় পড়া লাখ লাখ জনগণের সহায়তায় কি করা প্রয়োজন তা নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে দাতব্য সংস্থাগুলো। এক সময়কার সোভিয়েত ইউনিয়নের রুটির ঝুড়ি এখন এক টুকরো খাবারের জন্য হাত বাড়াতে হচ্ছে ।

শরণার্থী সংখ্যা বাড়তে থাকায় তাদের আশ্রয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছেন ইউরোপের বিভিন্ন দেশ। ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসন শুরুর পর মানবিক সহায়তায় হাত বাড়িয়েছে প্রতিবেশী দেশ রোমানিয়া। রাস্তার মোড়ে মোড়ে ইউক্রেনীয় শরণাথীদের দেওয়া হচ্ছে খাবার থেকে শুরু করে সব ধরনের সহায়তা। তাদের আশ্রয় দিতে চলছে জোর প্রস্তুতি। বিভিন্ন খোলা মাঠে তৈরি করা হচ্ছে অস্থায়ী আশ্রয় শিবির।

রাশিয়ার হামলা শুরুর পর তিন দিনে ইউক্রেন ছেড়ে পালিয়েছে ১ লাখ ৫০ হাজারের বেশি বাসিন্দা। বাস্তুহারা হওয়ার পরিমাণ বেড়েই চলেছে। এর মাঝে ইউক্রেনে মানবিক সহায়তা বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত