একের পর এক নিষেধাজ্ঞায় ক্ষুদ্ধ পুতিন
একের পর এক নিষেধাজ্ঞায় ক্ষুদ্ধ পুতিন

একের পর এক নিষেধাজ্ঞায় ক্ষুদ্ধ পুতিন

মাসুদ রানা

মস্কোর ওপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞায় ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছেন পুতিন, রুশ বিরোধীদের দিয়েছেন কড়া হুঁশিয়ারি।

নো ফ্লাই জোন ঘোষণার আহ্বানে ন্যাটোর সাড়া না পেয়ে এবার ওয়াশিংটনের কাছে নিরাপত্তা ও আর্থিক সহায়তা চেয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

তবে ইউক্রেনে অস্ত্র পাঠানো বন্ধে নেটো দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মস্কো।

রাশিয়ার সর্বাত্মক হামলার মুখে ইউক্রেনে নো-ফ্লাই জোন ঘোষণার জন্য বারবার আহ্বান জানাচ্ছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি।

তবে তাঁর এ আহ্বানে এখন পর্যন্ত কেউ সাড়া দেননি।

পশ্চিমারা বলছে, ‘ইউক্রেনে নো ফ্লাই জোন’ ঘোষণা করা হলে তা  রাশিয়ার সঙ্গে হবে সরাসরি যুদ্ধের সামিল।

নো ফ্লাই জোন ঘোষণা করে কোনো নির্দিষ্ট এলাকায় যে কোনো উড়োজাহাজ ওড়া বন্ধ করা যায়।

অর্থাৎ রাশিয়া ইউক্রেনে বিমান হামলা চালাতে গেলেও তাদের প্রতিরোধের মুখে পড়তে হবে।

এখন যদি রাশিয়া নো ফ্লাই জোনে ঢুকে পড়ে, তাহলে নেটোকেও তা ঠেকাতে পদক্ষেপ নিতে হবে। এতে পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে।

যদিও রাশিয়ার ওপর অন্যান্য নিষেধাজ্ঞা অব্যাহত রেখেছে পশ্চিমারা।

পেমেন্ট জায়ান্ট মাস্টারকার্ড ও ভিসা জানিয়েছে, তারা রাশিয়ায় তাদের কার্যক্রম স্থগিত করছে। ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলা বন্ধে বিশ্বনেতাদের নতুন করে জোরালো পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন

জনসন:  ইউক্রেনীয়রা কীভাবে জীবন ধারণ করছে তা আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না। তাদের সহায়তায় আমাদের এগিয়ে আসা উচিত।

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, কোনো দেশ ইউক্রেনে নো-ফ্লাই জোন ঘোষণা করে তার পরিণাম হবে ভয়াবহ। এতে শুধু ইউরোপ নয় বিপদে পড়বে বিশ্ব।

পুতিন: যদি কোনো দেশ ইউক্রেনের আকাশে নো–ফ্লাই জোন চালু করে, তাহলে সেই দেশও সংঘাতে অংশ নিয়েছে বলে ধরে নেওয়া হবে।

এদিকে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সঙ্গে ফোনলাপে নিরাপত্তা ও আর্থিক সহায়তা চেয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তবে ইউক্রেইনে অস্ত্র পাঠানো বন্ধে নেটো দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মস্কো।

news24bd.tv তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর