হামলা বন্ধে চার শর্ত রাশিয়ার 
হামলা বন্ধে চার শর্ত রাশিয়ার 

সংগৃহীত ছবি

হামলা বন্ধে চার শর্ত রাশিয়ার 

অনলাইন ডেস্ক

ইউক্রেনের সুমি ও ইরপিন শহরে অস্ত্রবিরতি কার্যকর ও মানবিক করিডর খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। এর পরপরই ওই দুই শহর থেকে বেসামরিক নাগরিকদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।  

করিডোর চালুর সিদ্ধান্ত রুশ সৈন্যদের অনবরত গোলাবর্ষণের মুখে ভেস্তে যাওয়ার পর নতুন চুক্তি অনুযায়ী, মঙ্গলবার লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে বলে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। যদিও রাশিয়ার গোলাবর্ষণের কারণে বেসামরিক মানুষ সরে যেতে বাধার মুখে পড়ছে, বলে দাবি করছে ইউক্রেন।

তবে হামলা বন্ধে ৪টি শর্ত জুড়ে দিয়েছে মস্কো। যার মধ্যে রয়েছে- ন্যাটোর সদস্য হতে পারবে না ইউক্রেন, লুহানস্ক আর দোনেৎস্ক হবে স্বাধীন রাষ্ট্র। সেইসাথে ক্রিমিয়ার স্বীকৃতি চায় রাশিয়া।  

ইউক্রেনে রুশ সেনাদের অব্যাহত হামলায় দেশটির সুমিতে শিশুসহ নিহত হয়েছে অন্তত ১০ সামরিক কর্মকর্তা।

এছাড়া মাকারিভ শহরের একটি শিল্প বেকারিতে রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর চালানো হামলায় কমপক্ষে ১৩ জন নিহত হয়েছেন।  

হামলার মধ্যেই গতকাল সোমবার ইউক্রেন ও রাশিয়ার কর্মকর্তারা তৃতীয় দফা সমঝোতা বৈঠক করেন। যেখানে কিছুটা  অগ্রগতির মধ্য দিয়ে এ বৈঠক শেষ হয়।  

এই প্রায় ২ সপ্তাহে প্রাণ বাঁচাতে ইউক্রেন থেকে পালিয়ে পার্শ্ববর্তী রাষ্ট্র পোল্যান্ড ও রোমানিয়ায় প্রায় ২০ লাখ ইউক্রেনীয় আশ্রয় নিয়েছেন। জাতিসংঘের তথ্য অনুযায়ী, গত ১৩ দিনের সামরিক অভিযানে ইউক্রেনে সাড়ে সাড়ে ৪ শ’র বেশি বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছেন।

news24bd.tv/আলী