নারী-শিশুসহ ৭ জনকে হত্যা করেছে রুশ সেনারা : ইউক্রেন
নারী-শিশুসহ ৭ জনকে হত্যা করেছে রুশ সেনারা : ইউক্রেন

সংগৃহীত ছবি

নারী-শিশুসহ ৭ জনকে হত্যা করেছে রুশ সেনারা : ইউক্রেন

রিমু

ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন অব্যাহত রয়েছে। ক্রমাগত হামলার ফলে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হচ্ছে ইউক্রেন। দেশ ছেড়েছেন লাখ লাখ মানুষ। বাড়ছে মৃত্যুও সংখ্যাও।

ইউক্রেনের রাজধানী কিইভের নিকটে একটি গ্রাম থেকে পালানোর সময় সাতজন বেসামরিক নাগরিককে হত্যার জন্য রুশ বাহিনীকে দায়ী করা হয়েছে।

শনিবার ইউক্রেনের সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা জানায়, কিইভের নিকটে একটি গ্রাম থেকে পালানোর সময় একটি দলকে গুলি চালায় রুশ সেনারা। এতে সাতজন নিহত হয়েছে, যাদের মধ্যে একজন শিশু রয়েছে।

এ ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় ফ্রান্স বলেছে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন দেখিয়েছেন যে, তিনি শান্তি স্থাপনে প্রস্তুত নন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা সংস্থা জানান, "পেরেমোগা গ্রাম থেকে  'সবুজ' করিডোর দিয়ে সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চলাকালীন দখলদাররা একচেটিয়াভাবে নারী ও শিশুদের একটি দলের উপর গুলি চালায়। এই নৃশংসতায় সাতজন নিহত হয়। তাদের মধ্যে একজন শিশুও রয়েছে। '' শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে।

ইউক্রেনীয় ভাষায় পেরেমোগার অর্থ হলো 'বিজয়'। ছোট্ট এই পেরেমোগা গ্রামটি কিয়েভের উত্তর-পূর্ব শহর থেকে প্রায় ৩৬ কিলোমিটার দূরে। যেখানে রাশিয়ান ট্যাঙ্কগুলি রাজধানীর দিকে অগ্রসর হচ্ছিল।

সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা জানায়, রাশিয়ান সৈন্যরা হামলার পরে তাদের গ্রামে ফিরে যেতে বাধ্য করেছিল। এদিকে ওই হামলায় আহতের আহতদের সংখ্যা কত তা অজানা বলেও জানানো হয়।

এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, "বর্তমানে আহতদের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করা, সেইসাথে মানবিক ও চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করা প্রায় অসম্ভব। "

ইচ্ছাকৃতভাবে নিরীহ বেসামরিকদের লক্ষ্য করে গুলি চালানোকে যুদ্ধাপরাধ বলছে ইউক্রেন।

সূত্র : রয়টার্স, নিউজনাইন

news24bd.tv রিমু