‘রাশিয়া যুদ্ধে জয়ী হলেও ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়বে’ 
‘রাশিয়া যুদ্ধে জয়ী হলেও ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়বে’ 

সংগৃহীত ছবি

‘রাশিয়া যুদ্ধে জয়ী হলেও ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়বে’ 

আসমা তুলি

ইউক্রেনের একের পর এক শহর দখলে নিচ্ছে রুশ সেনারা। রাজধানী কিয়েভও দখলের পথে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাশিয়া যুদ্ধে জয়ী হলেও পড়বে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে। পশি্চমাদের অগণিত নিষেধাজ্ঞা এবং যুদ্ধ বিরোধীদের জনরোষ কিভাবে সামাল দেবেন প্রেসিডেন্ট পুতিন তা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে।

পশ্চিমাদের ধারণা, ভ্লাদিমির পুতিন সাবেক সোভিয়েত সাম্রাজ্য ফিরে পেতে চান। তবে  যা কার্যত সম্ভব নয়। কারণ এরইমধ্যে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙ্গে স্বাধীন হওয়া কয়েকটি দেশ  ন্যাটোতে যোগ দিয়েছে। রাশিয়ার সীমান্তে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে পশ্চিমাদের হাতে ছিলো শুধু ইউক্রেন।  তাইতো দেশটিকে ন্যাটোতে অন্তভূক্তির প্রবল আগ্রহ ছিলো যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমাদের।

প্রতিবেশী এই দেশটির সাথে রুশদের সম্পর্কও বেশ ঘনিষ্ঠ। ইউক্রেনেও বহু মানুষ রুশ ভাষায় কথা বলেন। তাইতো রুশ প্রেসিডেন্টর ইউক্রেন আক্রমণ তাদের ক্ষুব্ধ করেছে। খোদ রাশিয়ার মানুষও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। অন্যদিকে সিরিয়াসহ নানা জায়গায় পুতিন পশ্চিমাদের সাথে টক্কর দিলেও এবার দেশকে তিনি সরাসরি যুদ্ধে জড়িয়েছেন।  ফলে নজিরবিহীন পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়েছে রাশিয়া।

বিশ্লেষকদের অনেকে বলছেন  পুতিন  ইউক্রেনে সাফল্য পেলেও দেশটির সাড়ে কোটি মানুষের প্রবল বিরোধিতার মুখে পড়তে হতে পারে  তাকে। এই জনরোষের ঢেউ রাশিয়াতে আসলে সেটিও তার জন্য  হবে বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ। পাশাপাশি অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার কঠিন পরিসংখ্যান তো রয়েছেই।

news24bd.tv/এমি-জান্নাত