চায়ের রাজ্যে এল ‌‘টি-কোলা’

চায়ের রাজ্যে এল ‌‘টি-কোলা’

সৈয়দ রাসেল

চায়ের রাজ্যে এবার নতুন উদ্ভাবন টি-কার্বনেটেড বেভারেজ। বাজারে প্রচলিত কোমল পানীয়ের নতুন এই রূপান্তরে অটুট থাকবে চায়ের স্বাদ। তাছাড়া, চায়ের উপকারী উপাদান পলিফেনল, ক্যাফেইন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পুষ্টিগুণে ভরপুর থাকবে এই পানীয়। যা শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষকের সফল উদ্ভাবন।

গবেষকেরা জানান, ব্ল্যাক ও গ্রীন দুই-ধরনের চায়েই কার্বনেটেড বেভারেজ তৈরি করা হয়েছে, যার মূল্য বাজারে প্রচলিত বেভারেজ থেকেও কম।

পছন্দের পানীয়র প্রশ্নে বাংলাদেশে অনেকেরই উত্তর হবে ‘চা’। সকালের নাস্তায়, অফিসের মিটিং কিংবা কাজের ক্লান্তি দূর করে দুটি পাতা একটি কুঁড়ির প্রক্রিয়াজাত উপাদান থেকে তৈরি এই পানীয়।

তবে চা পিয়াসীদের কাছে পানীয়টি আরও তৃপ্তিময় করে তুলতে দেশে-বিদেশে চলছে বিস্তর গবেষণা। যে গবেষণার সর্বশেষ উদ্ভাবন টি-কোলা। যে গবেষণায় তাক লাগিয়ে দিয়েছেন শাবিপ্রবির এফ.ই.টি.টি বিভাগের একদল গবেষক। প্রস্তুত করা পানীয়গুলোর মেয়াদ থাকবে অন্তত তিন মাস। মেয়াদ যাতে আরও বাড়ানো যায় সে লক্ষ্যে কাজ করছেন গবেষকরা।

গবেষকরা বলছেন, কোমল পানীয়গুলো মানুষের শরীরে তেমন উপকারে আসে না। তাই চায়ের গুণাগুণ ও মান ঠিক রেখে কার্বোনেটেড ড্রিংস তৈরির চেষ্টা চালিয়ে এই টি-কোলার উদ্ভাবন।

ব্ল্যাক ও গ্রীন দুই-ধরনের চায়েই কার্বনেটেড বেভারেজ তৈরি করা হয়েছে, যার মূল্য বাজারে প্রচলিত বেভারেজ থেকেও কম; জানালেন এই গবেষক।

টি-কার্বনেটেড বেভারেজ নিয়ে বাণিজ্যিক চিন্তা না থাকলেও এর প্রসার নিয়ে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন মতো শাবিপ্রবির এই গবেষকদের।

news24bd.tv তৌহিদ

;