অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১৭তম এশিয়া-ইউরোপ বিজনেস অ্যান্ড সোশ্যাল ফোরাম
অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১৭তম এশিয়া-ইউরোপ বিজনেস অ্যান্ড সোশ্যাল ফোরাম

সংগৃহীত ছবি

অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ১৭তম এশিয়া-ইউরোপ বিজনেস অ্যান্ড সোশ্যাল ফোরাম

রিমু

১৭তম এশিয়া-ইউরোপ বিজনেস অ্যান্ড সোশ্যাল ফোরাম-২০২২ আগামী ২২ এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এবারের প্রতিপাদ্য 'পারস্পরিক সমৃদ্ধির জন্য সহযোগিতা করতে একসঙ্গে আসছে'। এশিয়াওয়ান মিডিয়া গ্রুপের আয়োজনে যুক্তরাজ্যের লন্ডলে ম্যারিয়ট হোটেল গ্রোসভেনর স্কোয়ারে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এবারের আসর।

 একদিনের মেগা এই শীর্ষ সম্মেলনটি পারস্পরিক কল্যাণ ও সহযোগিতার জন্য একটি বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে ইউরোপ, এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য এবং আফ্রিকার ব্যবসায়ী এবং সামাজিক নেতাদের একটি বিশাল সমাবেশ হবে বলে আশা করছেন আয়োজকরা।

সম্মেলনে যুক্তরাজ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, সিঙ্গাপুর, দুবাই, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, চীন, মায়ানমার, কম্বোডিয়া, ওমান, মালয়েশিয়া, মরক্কো, নাইজেরিয়া, কেনিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, সংযুক্ত আরব আমিরাতের ব্যবসায়িক ও সরকারি খাতের প্রধান ব্যবসায়ী ও সামাজিক নেতারা উপস্থিত থাকবেন।  তারা বিশ্বব্যাপী, বিশেষ করে ইউরেশীয়, উপসাগরীয় এবং আফ্রিকান অঞ্চলে অর্থনৈতিক সহযোগিতা, নেটওয়ার্কিং এবং বিনিয়োগের সুযোগের নতুন উপায় খুঁজবেন।

এশিয়াওয়ান মিডিয়া গ্রুপ ১৭তম এশিয়া-ইউরোপ বিজনেস অ্যান্ড সোশ্যাল ফোরামের মধ্য দিয়ে মূলত ইউরোপ, এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য এবং আফ্রিকার উল্লেখযোগ্য সামাজিক ও অর্থনৈতিক অগ্রগতির অর্জন তুলে ধরবে। পাশাপাশি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে সহযোগিতার বিভিন্ন উপায় নিয়ে আলোচনা করবে।  একইসময়ে মধ্যপ্রাচ্য, দক্ষিণ এশিয়া, আফ্রিকা এবং ভারতীয় উপমহাদেশ থেকে সরকারি কর্মকর্তা, রাষ্ট্রদূত, ব্যবসার মালিক, বিনিয়োগকারী, রাজকীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি এবং পেশাদার, ইউরোপ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে সিইও, সিএফও, সিটিও এবং সিএইচআরও সহ বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকবেন।

আওয়

সম্মেলনের প্রতিপাদ্য নিয়ে এশিয়াওয়ান ম্যাগাজিন এবং ইউডাব্লিউজির (UWG) গ্লোবাল হেড অ্যান্ড প্রিন্সিপাল পার্টনার রজত শুকাল বলেন, পারস্পরিক অগ্রগতি এবং সমৃদ্ধির জন্য দ্রুত পরিবর্তনশীল পোস্ট-প্যান্ডেমিক বিশ্বের সাথে আমাদের দ্রুত বিকশিত হতে হবে এবং জাতি ও ভৌগলিক সীমানা অতিক্রম করতে হবে এবং হাত মেলাতে হবে।

তিনি আরও বলেন, নিঃসন্দেহে, পারস্পরিক সহযোগিতা সময়ের প্রয়োজন।  এখন সময় এসেছে যখন আমাদের সম্মিলিতভাবে বিশ্বের উন্নতির সুযোগ তৈরি করতে হবে। এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য এবং আফ্রিকা জুড়ে উৎকর্ষের একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করার পর আমরা পরিধি বিস্তৃত করতে চাই এবং ইউরোপ ও আমেরিকাকে অন্তর্ভুক্ত করতে চাই যাতে বিশ্বের সর্বশ্রেষ্ঠ ব্র্যান্ড এবং নেতাদের সামনে আনা যায়। একই সাথে নেটওয়ার্কিংয়ের জন্য কিছু অনন্য এবং একেবারে নতুন সুযোগ তৈরি করা যায়, বিনিয়োগ এবং টেকসই উন্নয়ন।

হরিনাথ

কর্পোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতার বর্তমান গুরুত্বের উপর জোর দিয়ে ডিপিজিসি (DPGC) গ্রুপের চেয়ারম্যান অজয় হরিনাথ সিং বলেন, আমরা সামাজিক কল্যাণের জন্য সমষ্টিগত এবং সহযোগিতার প্রতি আমাদের অঙ্গীকারকে দৃঢ়ভাবে মূল্যায়ন করি, বিশেষ করে চলমান মহামারির আলোকে। আমি এটা জানাতে পেরে আনন্দিত যে আমাদের গ্রুপ কোভিড-১৯ মহামারি চলাকালীন যুবকদের জন্য বিপুল কর্মসংস্থান ও আয়ের সুযোগ সৃষ্টি করছে।

তিনি বলেন, আমরা দেশের জন্য সম্পদ তৈরি করতে এবং কর্মসংস্থানের সাথে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাড়াতে খুচরা, প্রতিরক্ষা উৎপাদন, লজিস্টিকস এবং ই-যানবাহনের মতো বেশ কয়েকটি উচ্চ-বৃদ্ধি খাতে প্রবেশ করছি। ডিপিজিসির মূল মূল্যবোধ, দৃষ্টিভঙ্গি এবং শক্তিশালী সিএসাআর কার্যক্রম এশিয়াওয়ান সামিটের এই এবারের প্রতিপাদ্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

তিনি আরও বলেন, যুক্তরাজ্যে আসন্ন এশিয়াওয়ান কভিড-১৯ প্রতিশ্রুতি পুরষ্কারের মাধ্যমে, আমরা যৌথতা, যত্নশীল এবং সহযোগিতার চেতনাকে উন্নীত করতে চাই, যা আমরা বিশ্বাস করি মানুষের মধ্যে অন্তর্নিহিত সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য গুণ।

news24bd.tv রিমু

সম্পর্কিত খবর

;