আ.লীগ নেতা টিপু-প্রীতি হত্যা, মাসুম ৭ দিনের রিমান্ডে
আ.লীগ নেতা টিপু-প্রীতি হত্যা, মাসুম ৭ দিনের রিমান্ডে

সংগৃহীত ছবি

আ.লীগ নেতা টিপু-প্রীতি হত্যা, মাসুম ৭ দিনের রিমান্ডে

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম টিপু ও কলেজছাত্রী সামিয়া আফরান প্রীতিকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় করা মামলায় গ্রেপ্তার শুটার মো. মাসুম ওরফে আকাশের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেনের আদালত আজ সোমবার (২৮ মার্চ) এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।  

 রাজধানীর শাহজাহানপুরে মতিঝিল থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম টিপু গত বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) রাত সাড়ে ১০টার দিকে খুন হন। এ সময় ঘটনাস্থলের পাশে রিকশায় থাকা কলেজছাত্রী সামিয়া আফরিন প্রীতি গুলিতে নিহত হন।

এছাড়া আহত হন টিপুর গাড়িচালক মুন্না।

রোববার (২৭ মার্চ) টিপু ও প্রীতিকে গুলি করা মাসুম মোহাম্মদ আকাশকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। পুলিশকে মাসুম বলেন, টিপুকে হত্যার পরদিন রাতে ঢাকা থেকে তিনি জয়পুরহাটে যান।

ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত গতকাল রোববার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার সাংবাদিকদের জানান, ঘটনার আগের দিনও তাঁকে হত্যার চেষ্টা করেছিলেন মাসুম। কিন্তু ওই দিন তিনি সুযোগ পাননি বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন। টিপুকে হত্যার পরদিন রাতে ঢাকা থেকে তিনি জয়পুরহাটে যান।

সেখান থেকে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ‘ভারতে’ যেতে চেয়েছিলেন। তবে সেদিন যেতে না পেরে বগুড়ায় যান। যে গাড়িতে তিনি জয়পুরহাটে গিয়েছিলেন, সেই গাড়ির লোকজন ঢাকায় আসার পর তাদের নিয়ে বগুড়ায় যায় পুলিশ। সেখান থেকে  গ্রেপ্তার করা হয় মাসুমকে।

ডিবির পক্ষ থেকে বলা হয়, টিপু মতিঝিল এলাকার প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা ছিলেন। এই হত্যার পেছনে বেশ কয়েকটি কারণ রয়েছে। তবে হত্যাকাণ্ড পরিকল্পিত হলেও এর ‘উদ্দেশ্য’ এখনো জানা যায়নি। এই হত্যাকাণ্ডে আরো অনেকে জড়িত থাকতে পারে। এ ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারীকে খোঁজা হচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সন্ত্রাসী মুসা, কাইল্যা পলাশ, নাসির, সালেহ, হাসানসহ কয়েকজন রাজনৈতিক নেতাও এই হত্যার পরিকল্পনার সঙ্গে ছিলেন। গত তিন দিন ধরে তাঁদের পর্যায়ক্রমে ডিবি ও র‌্যাব হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

news24bd.tv/ কামরুল 

;