কঠিন পরীক্ষায় ইমরান খান

কঠিন পরীক্ষায় ইমরান খান

মাসুদ রানা

অনাস্থা প্রস্তাবের মুখে ক্ষমতায় টিকে থাকার কঠিন পরীক্ষায় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। যার সংকটকালে আত্মগোপনে তার একাধিক মন্ত্রী। এমনকি রাজনৈতিক দৃশ্যপটে অদৃশ্য অনেকেই , যা নিয়ে চলছে গুঞ্জন। আজ পার্লামেন্টে তার বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করতে পারেন বিরোধীরা।

অন্যদিকে  ক্ষমতা বাঁচাতে মরিয়া ইমরান খানের  দাবি ,বিদেশিদের মদদে পাকিস্তানে সরকার পরিবর্তনের চেষ্টা চলছে।  

ক্রিকেট মাঠ থেকে সোজা রাজনীতিতে এসে পাকিস্তানের  প্রধানমন্ত্রী বনে যাওয়া ইমরান খান এখন বিরোধীদের অনাস্থা প্রস্তাবের মুখে। ইমরানের জন্য রাজনৈতিক হুমকির মূলত তার দেশের ভেতরে। দেশটির  মূল্যস্ফীতির হার এখন  দুই অংকের ঘরে, ফলে সর্বত্র অসন্তোষ ছড়িয়ে পড়েছে এবং সমালোচনা বেড়েই চলেছে তার বিরুদ্ধে। বিরোধিদের দাবি, ইমরান দেশের অর্থনীতির বারোটা বাজিয়েছেন।

মূলত তার ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত সাবেক সামরিক গোয়েন্দা প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফাইজ হামিদকে সামরিক বাহিনীর প্রধানের পদ দিতে গিয়ে তিনি সামরিক বাহিনীর সমর্থন হারিয়েছেন। পাকিস্তানের শীর্ষ সেনা কর্মকর্তারা ইমরানের ওই পদক্ষেপের বিরোধিতা করেছেন। আর এর সুযোগ নিয়েছে বিরোধী দলগুলো, পার্লামেন্টে তারা অনাস্থার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে।

বিরোধী দল ছাড়াও ইমরানের নিজ দলের অনেক আইনপ্রণেতা তাঁর পাশে নেই বলে গুঞ্জন  উঠছে। এ ছাড়া সরকারের শরিক দলগুলোও ইমরানের বিরুদ্ধে ভোট দিতে পারে। সরকার পতনের হুমকির মুখে রোববার বিশাল জনসভার আয়োজন করল পিটিআই। পদত্যাগের দাবি প্রত্যাখ্যান করেছেন  ইমরান খান। তার দাবি, বিদেশিদের মদদে পাকিস্তানে সরকার পরিবর্তনের চেষ্টা চলছে।

বিদেশি অর্থ ব্যবহার করে পাকিস্তানে সরকার পরিবর্তনের চেষ্টা করা হচ্ছে। আমাদের লোকজনকে ব্যবহার করা হচ্ছে। কিছু লোক আমাদের বিরুদ্ধে অর্থ ব্যবহার করছে। আমাদের চাপ দিতে কোন জায়গা থেকে এসব চেষ্টা করা হচ্ছে, তা আমরা জানি। আমাদের লিখিতভাবেও হুমকি দেওয়া হয়েছে। তবে জাতীয় স্বার্থে আপস করব না

পাকিস্তানে কোনো প্রধানমন্ত্রীর পুরো মেয়াদ ক্ষমতায় থাকার রেকর্ড নেই। ইমরান যদি আস্থা ভোটে উৎরাতে ব্যর্থ হন, সেই রেকর্ড আরও দীর্ঘায়িত হবে।  

news24bd.tv/আলী

;